Chanakya Niti | বন্ধু খারাপ না ভালো, বেছে নিন চাণক্য-নীতি মেনে

Chanakya Niti | বন্ধু খারাপ না ভালো, বেছে নিন চাণক্য-নীতি মেনে

প্রাচীন ভারতের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও দার্শনিক Chanakya Niti চাণক্যের নীতি আজও একইরকম প্রাসঙ্গিক। কূটনীতিতে বিশেষ পারদর্শিতার জন্য কৌটিল্য নামেও তিনি পরিচিত ছিলেন। জীবনে সঠিক বন্ধু কী ভাবে বাছতে হবে, সে বিষয়েও উপদেশ দিয়ে গিয়েছেন চাণক্য। দেখে নিই  Chanakya Niti চাণক্য নীতি অনুসারে বন্ধু বাছার উপায়। চাণক্য বলেছেন যে সব মানুষের দুটি সত্ত্বা থাকে।

একটি, সে আসলে ঠিক যেরকম, আর অন্য সত্ত্বাটি হল সমাজের কাছে সে নিজেকে যে ভাবে তুলে ধরে। তাই চট করে কোনও মানুষ সম্পর্কে ধারণা করে নেওয়া ঠিক নয়। একজন মানুষের প্রকৃতি ঠিক কী রকম, তা চট করে বোঝা যায় না। তাই বন্ধু করার আগে ভালো করে পর্যবেক্ষণ করা জরুরি। Chanakya Niti চাণক্য নীতি অনুসারে কারোর সঙ্গে বন্ধুত্ব করার আগে সে অন্যের জন্য কতটা ত্যগ স্বীকার করতে পারে, তা দেখে নেওয়া জরুরি।

যে মানুষ নিজের জন্য ছাড়া অন্য কারোর উপকারে আসে না, তার থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকা ভালো। এরা কখনোই ভালো বন্ধু হতে পারে না। এদের ইগো খুব বেশি হয়। চাণক্য আরও বলেছেন যে বন্ধু বাছার আগে দেখে নেওয়া দরকার যে ভালো আর খারাপের মধ্যে সে ব্যক্তি পার্থক্য করতে পারছে কি না। যে খারাপ-ভালোর তফাত্‍‌ করতে পারে না, তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ ভাবে মেলামেশা ক্ষতিকর।

এর পরের ধাপ হল সেই ব্যক্তি সম্পর্কে তার আশেপাশের মানুষরা কেমন ধারণা পোষণ করেন, তা দেখা। তার অন্য ঘনিষ্ঠ লোকজন যদি তার আড়ালেও তার সম্পর্কে ভালো কথা বলে, তাহলে বুঝতে হবে সেই মানুষটি সত্যি ভালো। এর পাশাপাশি ওই ব্যক্তি নিজের কাছের মানুষদের সম্পর্কে তাদের আড়ালে কেমন কথা বলে, সেটাও বিবেচ্য।

যদি ঘনিষ্ঠ কারোর সম্পর্কে তার আড়ালে কোনও ব্যক্তি নিন্দে করে, তাহলে সেই ব্যক্তির চরিত্র সম্পর্কে মনে সন্দেহ জাগে। বন্ধু বাছার চতুর্থ ধাপে খেয়াল করতে হবে সেই ব্যক্তির ধ্যান-ধারণা। যে মানুষ নিজের সুবিধা চরিতার্থ করতে অতিরিক্ত মিথ্যে কথা বলে না, নিজের জ্ঞান ও নিজের চেহারা নিয়ে গর্ব প্রকাশ করে না এবং অন্যের মতামতকে মূল্য দেয়, সেই হল সবার চেয়ে সেরা। যে কোনও কারোর সঙ্গে বন্ধুত্ব না করে সবদিক বিচার করতে উপদেশ দিয়েছেন চাণক্য।