মানুষের শরীরের বিশেষ এই অঙ্গগুলি থেকে বোঝা যায় তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট

মানুষের শরীরের বিশেষ এই অঙ্গগুলি থেকে বোঝা যায় তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট

আজবাংলা    আমাদের দেহ প্রত্যেকটা মুহূর্ত কোনো না কোনো কাজ করতে থাকে। শরীরের সকল স্বাভাবিক প্রক্রিয়া অক্ষুণ্ণ রাখার চেষ্টা করে এর নানা উপাদান। অসুস্থ হলে কিংবা কোনো রোগ হলে তা প্রতিরোধ করার চেষ্টা করে। শরীরের এমন নানা ক্রিয়ার মধ্যে অনেক কিছুই আছে যা সম্পর্কে আমাদের অনেকের বিন্দুমাত্র ধারণা নেই।

আজ এই লেখাটিতে একটি মানুষের সম্পর্কে যেমন তাঁর জন্মছক থেকে অনেক কিছু বলা যায়, তেমনই তাঁর অবয়ব দেখেও অনেক কিছু বলা যায়। জ্যোতিষশাস্ত্রে মানুষের মুখমণ্ডলের বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। মুখমণ্ডলের বিচারের উপর একটি মানুষের বেশ কিছু লক্ষণ বলে দেওয়া সম্ভব হয়।

নাকের ছিদ্র: মানুষের নাকের ছিদ্র দেখে তাঁর সম্পর্কে বেশ কিছু বলা যায়। যেমন নাকের ছিদ্রের আকার বড় বা ছোট হওয়া একটি মানুষের উপর প্রভাব বিস্তার করে। যদি নাকের ছিদ্র বড় হয় তা হলে সেই মানুষটি হয় খুবই কর্মনিপুণ এবং তার কল্পনাশক্তি হয় প্রবল। এদের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়ের গতিবিধি হয় খুব সক্রিয়। যদি নাকের ছিদ্র ছোট হয় তা হলে সেই মানুষ অনেকের কাছেই অপ্রিয় হয়। তাদের খুব একটা বড় মনের পরিচয় পাওয়া যায় না।

শরীরে অধিক লোম: যাদের শরীর অধিক লোমবিশিষ্ট হয় তাদের অনেকের কামনা-বাসনা প্রবল হয়। অত্যন্ত বিলাসপ্রিয় হয় এরা। খাওয়া ও পরিশ্রম দুয়েই যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে থাকে। যেকোনও শিল্পকলায় এরা বেশ এগিয়ে থাকে।বুকে বেশি লোম: বুকে বেশি লোম থাকে তাদের দাম্পত্য জীবন খুবই সুখকর হয়। এদের শক্তি ও বুদ্ধির জোর খুব বেশি হয়।

এরা প্রচুর বিষয়সম্পত্তির মালিক হয়ে থাকে। যাদের বুকে বিশেষ একটা লোম থাকে না তারা অনেকেই অত্যন্ত বুদ্ধিমান হয়। এদের অনেকে একটু স্বার্থ নিয়ে চলতে পছন্দ করে। প্রেমের ক্ষেত্রেও এদের একাংশ বিশ্বাসযোগ্য হয় না।দাঁতের উপর দাঁত থাকলে: যাদের দাঁতের উপর দাঁত থাকেতারা খুবই বুদ্ধিমান, ভাগ্যবান ও সৃজনশীল প্রকৃতির হয়। এদের ভোগ-বিলাসিতার উপর আসক্তি খুব বেশি থাকে।