নৃশংস, গণ ধর্ষণের পর একরত্তির ফুসফুস খুবলে নিল ধর্ষকরা

নৃশংস, গণ ধর্ষণের পর একরত্তির ফুসফুস খুবলে নিল ধর্ষকরা

আজ বাংলা:  ফের নৃশংস ঘটনার সাক্ষী থাকল উত্তরপ্রদেশ। মাত্র এক ছয় বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর শরীর থেকে ফুসফুস বের করে নেওয়া হল।

কুসংস্কারের বলি করা হল ওই শিশুকে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের কানপুরে। রুরাল কানপুর এলাকার এক গ্রামের এ ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ঘটনার বিষয়ে পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ১৯৯৯ সালে বিয়ের পর থেকে এক দম্পতি নিঃসন্তান ছিল।

তন্ত্রসাধনায় বিশ্বাস করে তারা জানতে পারে যে, ওই শিশু কন্যার লিভার খেলেই তারা সন্তান লাভ করতে পারবেন।

সে কারণেই দুই যুবককে ১৫০০ টাকা দিয়ে এ ঘটনা ঘটায়। ওই দম্পতি ও দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) ব্রিজেশ কুমার শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, ১৫০০ টাকা দিয়ে দুই যুবক মদ কেনে। অভিযুক্তরা পুলিশকে জানিয়েছে, তারা শিশুটির ওপর প্রথমে যৌন নির্যাতন করে।

তারপর তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। এরপরই পেট কেটে লিভার বের করে। কানপুর নগর ডিআইজি প্রীতিন্দর সিং বলেন, ‘‘দীপাবলির রাতে বাড়ির বাইরে খেলছিল শিশুটি। তারপরই নিখোঁজ হয়ে যায় সে। সারারাত খুঁজেও মেয়েটিকে পায়নি পুলিশ।

পরের দিন সকালে গ্রাম থেকে ১ কিমি দূরে একটা জঙ্গলের কাছে তার বিকৃত দেহ উদ্ধার করা হয়…চিপস খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছিল’’।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২, ২০১ ও পকসো আইনে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এহেন ন্যক্কারজনক ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এর পাশাপাশি অভিযুক্তদের কঠোর সাজার নির্দেশ দিয়েছেন।