নিজের হাতে খাল কেটেছেন, ৩০ বছর ধরে। বিশেষ উপহার দিলেন আনন্দ মাহিন্দ্রা

নিজের হাতে খাল কেটেছেন, ৩০ বছর ধরে। বিশেষ উপহার দিলেন আনন্দ মাহিন্দ্রা

আজবাংলা  গ্রামে জলের অভাব ছিল অনেকদিন থেকেই। সেইকারনে পরিশ্রম করলেও ফসল একদমই ভাল হত না। স্থানীয় প্রশাসনিক কর্তাদের সমস্যার কথা বলেও সুরাহা হয়নি। সেইকারনে, তিনি একাই রোজ একটু করে করে মাটি খুঁড়ে, পাঁচ কিমির মত লম্বা একটি খাল কেটে ফেলেন।

এবার সেই খাল দিয়েই এখন পাশের নদী থেকে জল আসতে থাকে। সেইবার মনে আছে, একার হাতে পাহাড় ভেঙে রাস্তা বানিয়েছিলেন দশরথ মাঝি। তাঁকে ঘিরে বলিউডে সিনেমাও হয়েছে। এবার সেই দশরথ মাঝির মতোই একই কাজ করলেন এবার লোঙ্গি।

এক হাতে কোদাল, অপর হাতে ঝুড়ি নিয়ে তিনি একাই বেরিয়ে পড়তেন বাড়ি থেকে। প্রত্যেক ভোরে যাত্রা করতেন। ৩০ টা বছর ধরে তিনি একাই এই কাজ করে গিয়েছেন। এমনকি বাড়ির লোকজনকেও পাশে পাননি। স্থানীয় লোকেরা পাগল বলত তাঁকে।

আসলে একা যে একটা খাল কেটে ফেলা যায় সেটাই সমাজের অনেকেই ভাবতে পারেননি। শেষমেশ বিহারের গোয়ার লোঙ্গি ভূঁইয়া একার হাতে খাল কেটে ফেলেছেন। তাঁর ৩০ টা বছরের পরিশ্রম সার্থক হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে টুইটারের একজন লোঙ্গির কথা জানান মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান, আনন্দ মাহিন্দ্রাকে। তাঁকে জিজ্ঞেস করেন তিনি, তিনি কি লোঙ্গিকে একটা ট্রাক্টর উপহার হিসেবে দিতে পারেন? এরপর উত্তর আসে আনন্দ মাহিন্দ্রার তরফ থেকে, লোঙ্গিকে ট্রাক্টর উপহার দেওয়াটা তার এবং তাদের সংস্থার কাছে অত্যন্ত সম্মানের ব্যাপার।

এর পাশাপাশি বলেন তিনি, যে ৩০ টা বছর ধরে একদম একার চেষ্টায় যেভাবে খাল কেটেছেন সেটাও তাজমহলের থেকে কোন অংশে কম নয়। আর তাই তিনি অবিলম্বে লোঙ্গির কাছে তারই সংস্থার একটি ট্রাক্টর পৌঁছে দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।