শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে কুয়োয় ঝাঁপ, পরে ১১ জনের দেহ উদ্ধার

শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে কুয়োয় ঝাঁপ, পরে ১১ জনের দেহ উদ্ধার

মধ্যপ্রদেশের বিদিশায় মর্মান্তিক দুর্ঘটনা (Madhya Pradesh Well Tragedy)। কুয়োয় পড়ে যাওয়া এক শিশুকে বাঁচাতে প্রায় ৩০ জন পড়ে যান কুয়োয়। তাঁদের ১১ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিদিশার লাল পাতার গ্রামের গঞ্জ বসোদা এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার। কুয়োয় লাফ দেওয়া বাকি ১৯ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা গিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দফতর এই ঘটনায় সমবেদনা জানিয়েছে। ট্যুইটে জানানো হয়েছে, মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান জানিয়েছেন, উদ্ধার করা ব্যক্তিদের বিদিশা ও বাসোদার হাসপাতালে চিকিত্‍সা করা হচ্ছে। রাজ্যের তরফেও মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। আহতদের ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত চিকিত্‍সাবাবদ খরচ দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলির পাশে থাকার বার্তা দিয়েছে সরকার। গত মঙ্গলবার রাতে ৮ বছরের এক বালক পড়ে যায় গ্রামের একটি কুয়োয়।

কুয়োর সিঁড়ি বেয়ে কয়েকজন তাকে উদ্ধারের জন্য নামে। বাকিরা কুয়োর চারিদিকে ভিড় করে দাঁড়িয়ে ছিলেন সাহায্যের জন্য। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, আচমকাই কুয়োর পাশের রেলিং ভেঙে যায় জনতার চাপে। এর পরই হুড়মুড়িয়ে বহু মানুষ ওই কুয়োয় পড়ে যান। কুয়োটি প্রায় ৫০ ফুট গভীর এবং ২০ ফুট তাতে জল রয়েছে। এর পর পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকটর ও তাতে থাকা চার পুলিশকর্মীরও ওই কুয়োয় পড়ে যান।

ঘটনাস্থলে উদ্ধারে নামে এনডিআরএফ ও এসডিআরএফ দল। প্রতিকূলতার মধ্যেও উদ্ধারকাজে নেমে পড়ে তাঁরা। আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন উদ্ধারকারীরা। কীভাবে কুয়োটি ধসে পড়ল, আগাম কোনও আশঙ্কা ছিল কিনা, সেই বিষয়গুলি ইতিমধ্যেই খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে প্রশাসন। একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান।