চোখে শুধু জল নয় স্বাস্থ্যেও জোয়ার আনতে পারে পেঁয়াজ, বিশেষজ্ঞরাই বলছেন এ কথা

চোখে শুধু জল নয় স্বাস্থ্যেও জোয়ার আনতে পারে পেঁয়াজ, বিশেষজ্ঞরাই বলছেন এ কথা

আজ বাংলা: পেঁয়াজ....এই জিনিসটা কাটা মানেই চোখে জল কিংবা মুখে বাজে একটা গন্ধ। তাই অনেকেই পছন্দ করেন না এই সব্জিতেই।


 অথচ এই সব্জির যে কতো গুণ আছে তা শুনলে চোখে জল আসবে পেঁয়াজ প্রেমীদের। এ জল অবশ্য খুশির অশ্রুজল৷ তবে অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়ার দ্বারা প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে সম্প্রতি জানানো হয়েছে এই সব্জির উপকারিতা, গুণাগুণের ব্যাপারে। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণের সঙ্গে এতে ফাইটোকেমিক্যাল রয়েছে, যা আমাদের দেহে উন্নতি সাধনে কাজে লাগে।


আর  এর মধ্যে কার্মিনেটিভ, অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল, অ্যান্টিসেপ্টিক এবং অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় উপকরণ রয়েছে। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী প্রতিদিন পরিমাণমতো পেঁয়াজের রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে সর্দি–কাশির সমস্যা থাকে না। এছাড়া দেহে কোনও সংক্রমণ হলে সেই সময় পেঁয়াজ ভালো কাজে দিতে পারে৷ ব্যথা, সর্দি-কাশি, জ্বর, অ্যালার্জি বা সামান্য গা ব্যথার ক্ষেত্রেও কাজের কাজ করে দেখাতে পারে এই দৈনিক ব্যবহৃত সব্জি। 


জ্বরে দেহের তাপমাত্রা বেশি থাকলে পাতলা করে কাটা পেঁয়াজ কপালে রাখলে কিছু ক্ষণের মধ্যে তাপমাত্রা কমিয়ে দিতে পারে বলেও দাবি করা হয়েছে। নিয়মিত পেঁয়াজ খেলে রক্ত চলাচল নিয়ন্ত্রিত উপায়ে হয় বলে জানা গিয়েছে। হার্ট ভালো রাখার ক্ষেত্রেও নেয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

এছাড়া মানুষের যৌন ইচ্ছা বৃদ্ধি করে পেঁয়াজ। প্রতিদিন এক টেবিল চামচ পেঁয়াজ ও এক চামচ আদার রস মিশিয়ে খেয়ে নিন। দিনে তিনবার। আপনার যৌন ইচ্ছা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে। 

প্রতিদিন পেঁয়াজ খেলে ক্যান্সার রোধ করা সম্ভব। ক্যান্সার কোষগুলো দ্রুত বৃদ্ধি পায়। যা রোধে প্রতিদিন পেঁয়াজ খান। দেখবেন শরীরে একটা ক্যান্সার প্রতিরোধক কোষ তৈরি হয়ে যাবে।


এর পাশাপাশি পেঁয়াজে ক্রোমিয়াম থাকে। যা ব্ল্যাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করে। শরীরকে ঠান্ডা রাখে।