উচ্চ রক্তচাপ? দিনে ২ গ্লাস অরেঞ্জ জুস...তারপর দেখুন ম্যাজিক 

উচ্চ রক্তচাপ? দিনে ২ গ্লাস অরেঞ্জ জুস...তারপর দেখুন ম্যাজিক 

আজ বাংলা: উচ্চ রক্তচাপ...বর্তমান সময়ে এটা খুবই কমন একটি সমস্যা। যে ভাবে আমাদের স্ট্রেস এবং টেনশন বাড়ছে, তাতে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা প্রায় সবার মধ্যেই রয়েছে। হওয়াটা স্বাভাবিক। আর দীর্ঘদিন ধরে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলে যে হার্টের গোলমাল দেখা দিতে পারে, সে তো জানা কথা।

 টেনশনে থাকতে থাকতে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা যেন আরও বেড়ে গিয়েছে। করোনা থেকে বাঁচতে নিজের স্বাস্থ্য ভালো রাখা যে অত্যন্ত জরুরি তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন। তাই এবার এই সমস্যা মেটাতে জ্যুস খান। হ্যাঁ এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

ইয়োরোপিয়ান জার্নাল অফ নিউট্রিশনে সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে যে প্রতিদিন দু-গ্লাস করে অরেঞ্জ জুস খেলে মাত্র ১২ সপ্তাহের মধ্যেই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। অত্যন্ত সহজে খুবই তাড়াতাড়ি এই পদ্ধতিতে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। এই গবেষণা অনুযায়ী কমলালেবুর রসে হেসপিরিডিন নামম ফ্ল্যাভনয়েড থাকে।

এটি শরীরে অ্যান্টঅক্সিডেন্টের কাজ করে। এক লিটার একশ শতাংশ কমলালেবুর রসে ৬৯০ মিলিগ্রাম হেসপেরিডিন থাকে। ১২ সপ্তাহ প্রতিদিন টানা এই জুস পান করলে সিস্টোলিক ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে। হাইপারটেনশনের রোগীদের জন্যও অরেঞ্জ জুস অত্যন্ত উপকারী।

দেখা গিয়েছে ১২ সপ্তাহ ধরে যারা অরেঞ্জ জুস পান করেছেন তাঁদের ব্লাড হিমোকিস্টাইন কোনও ওষুধ ছাড়াই নিয়ন্ত্রণে এসে গিয়েছে। ব্লাড হিমোকিস্টাইন হার্টের অসুখের জন্য দায়ী। নিয়মিত ভাবে অরেঞ্জ জুস পান করলে ইউরিক অ্যাসিডও নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।

কোনও ওষুধ ছাড়াই শুধু দিনে দু-গ্লাস অরেঞ্জ জুস খেয়েই সুস্থ থাকা সম্ভব। তবে তার সঙ্গে নিজেকে অ্যাক্টিভ রাখতে হবে এবং স্বাস্থ্যকর খাওয়া দাওয়া করতে হবে। কমলালেবুর রসে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন C থাকে। আপনার শরীরে ১০০ শতাংশ ভিটামিনের প্রয়োজনীয়তা মেটাবে এই রস। অনেক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভিটামিন C ব্লাড প্রেসার কমাতে সাহায্য করে।