মাওবাদী হামলার মাস্টারমাইন্ড হিড়মার মাথার দাম ৪০ লক্ষ টাকা

মাওবাদী হামলার মাস্টারমাইন্ড হিড়মার মাথার দাম ৪০ লক্ষ টাকা

ছত্তিশগড়ের মাওবাদী হামলায় এখনও ২২ সেনা শহিদ হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৩১ জন জওয়ান। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, প্রায় ৩০০ থেকে ৪০০ মাওবাদীরা একটি দল সৈন্যদের দলকে ঘিরে ফেলে এবং এই আক্রমণ চালায়। গোয়েন্দা সংস্থাগুলির মতে, মাওবাদী নেতা হিড়মা এই পুরো ষড়যন্ত্রের মূল পরিকল্পনাকারী। কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনীর বিশেষ জঙ্গলযুদ্ধে পারদর্শূ কোবরা ইউনিট, সিআরপিএফের রেগুলার ব্যাটালিয়ন, বস্তারিয়া ব্যাটালিয়ন, ছত্তিশগড় পুলিশের আওতাধীন ডিস্ট্রিক্ট রিজার্ভ গার্ড ও অন্য কিছু শাখা থেকে প্রায় ১৫০০ জনের বাহিনীর সদস্য নিহত জওয়ানরা।

দিনকয়েক আগে ওই বিশাল বাহিনী মাওবাদীদের উপস্থিতির খবর পেয়ে বিজাপুর-সুকমা জেলার সীমান্ত বরবর তল্লাশি ও ধ্বংস করার অভিযানে যায়। মাওবাদীরাও পাল্টা ওখানে তত্পরতা শুরু করেছে বলে সূত্র মারফত খবর পেয়ে প্রায় ৭৯০ জন জওয়ানের বাহিনী জাগারগুন্দা-জোঙ্গাগুন্দা-তারেম এলাকায় রওনা হয় ভোরবেলায়। তখনই মাওবাদীদের তথাকথিত পিপলস লিবারেশন গেরিলা আর্মি (পিএলজিএ) বাহিনীর ১ নম্বর ব্যাটালিয়নের গেরিলারা তাদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

নেতৃত্ব দেয় তাদের নেতা হিডমা ও তার সঙ্গী সুজাতা। হিডমার মাথার দাম ৪০ লাখ টাকা, বয়স ত্রিশের কোঠায়। বস্তারে নিরাপত্তাবাহিনীর ওপর গত কয়েক বছরে একাধিক বড় হামলায় সে নেতৃত্ব দিয়েছে বলে সন্দেহ। মাওবাদীদের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত এলাকাটি অসমতল, এবরোখেবড়ো, গভীর দুর্ভেদ্য জঙ্গলে ঘেরা। এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীর ক্যাম্পও খুব কম। অবাধে সন্ত্রাস চালায় মাওবাদীরা।

জনৈক পদস্থ অফিসার বলেছেন, তিনদিক থেকে ঘিরে ফেলে জওয়ানদের অবিশ্রান্ত গুলিবৃষ্টির মুখে ঠেলে দেয় মাওবাদীরা। লাইট মেশিন গান থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে বুলেট ছুটে আসে। সেইসঙ্গে কম তীব্রতার আইইডি বিস্ফোরণ। জওয়ানরা কোনওক্রমে বড় গাছের আড়ালে লুকিয়ে পাল্টা জবাব দেন। কিন্তু একটা সময় তাদের গোলাবারুদ ফুরিয়ে আসে। আহত জওয়ানদের উদ্ধার করে এলাকার বাইরে নিয়ে যেতে হেলিকপ্টার পাঠানোর বার্তা যায়।

কিন্তু গুলিযুদ্ধ থামার পর প্রথম হেলিকপ্টারটি ঘটনাস্থলে নামতে নামতে বিকাল ৫টা পেরিয়ে যায়। নিহত ২২ জওয়ানের মধ্যে সিআরপিএফের ছিলেন আটজন, যাঁদের সাতজনই কোবরা কম্য়ান্ডো, একজন বস্তারিয়া ব্যাটালিয়নের। বাকিরা ডিআরজি ও স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের। এক সিআরপি ইন্সপেক্টরের এখনও খবর নেই। নিহত জওয়ানদের প্রায় ২ ডজন অত্যাধুনিক হাতিয়ারও মাওবাদীরা লুঠ করেছে বলে খবর। ট্রাক্টর ট্রলিতে চাপিয়ে নিহত সঙ্গীদের দেহ নিয়ে গিয়েছে মাওবাদীরা।  হিড়মার আসল নাম হিড়মনা এবং সুকমা জেলার পুভার্টি গ্রামের বাসিন্দা।

হিডমা পিপলস লিবারেশন গেরিলা আর্মির নেতৃত্বে রয়েছে এবং তার গ্রুপে প্রায় আড়াইশ মাওবাদী রয়েছে।এই মাওবাদী দলটি দন্ডকারণ্য বিশেষ জোনাল কমিটির সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত আছে বলে জানা গেছে।মোস্ট ওয়ান্টেড মাওবাদী নেতা রমন্না মারা যাওয়ার পর তার জায়গায় দায়িত্ব সামলাচ্ছে হিডমা। পাশাপাশি সিপিআই মাওবাদীদের ২১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সব থেকে কমবয়সী সদস্য।

অন্যদিকে অসমর্থিত সূত্রের খবর তাকে মাওবাদীদের কেন্দ্রীয় মিলিটারি কমিশনের প্রধান পদেও নিয়োগ করা হয়েছে। তবে তার কোনও সাম্প্রতিক ছবি পাওয়া যায়নি। এই মুহুর্তে তার মাথার দাম ৪০ লক্ষ টাকা।ভিম মাণ্ডভী হত্যা কাণ্ডে তার বিরুদ্ধে এনআইএ চার্জশিট দাখিল করেছে।হিডমার অধীনে মাওবাদীদের পিএলজিএ ব্যাটালিয়ন রয়েছে। এর আওতায় পলমেড, কনটা, জাগরগুন্ডা, বাসাগুদা এলাকার কমিটিগুলো একসঙ্গে কাজ চালায়।