শুধুমাত্র ভোটের কারনে সম্পূর্ণ নগ্ন হলেন হলিউডের তারকারা

শুধুমাত্র ভোটের কারনে সম্পূর্ণ নগ্ন হলেন হলিউডের তারকারা

আজবাংলা  একেবারে দরজার সামনে এসে গেছে মার্কিন মুলুকের নির্বাচন। অতএব কিছুদিনের মধ্যেই হতে চলেছে ডোনাল্ড এর ভাগ্য পরীক্ষা। এবারে করোনার কারনে সেইভাবে নির্বাচনের প্রচার পর্ব হয়ে উঠেনি। এখন মানুষের মনে জল্পনা তুঙ্গে। সবারই একটাই প্রশ্ন জো বিডেন কি হারাতে পারবেন ট্রাম্পকে?‌

এখন এই মহামারীর সময়ে ভোট কি প্রক্রিয়ায় হবে? কী করে ভোট দেবেন সাধারণ মানুষ?‌ এখন এইসব প্রশ্ন মানুষের মুখে মুখে। সেইকারনে, এইবারে হতে চলেছে ছোট্ট একটা পরিবর্তন। ভোট দেওয়ার পদ্ধতি নিয়েই এবার মুখ খুললেন মার্কিন হলিউড তারকারা।

এবারে ব্যালট যাবে ডাকের মাধ্যমে। কিছুকাল আগেও অনেক দেশ বিদেশেও এই বিশেষ ডাকের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার সুবন্দোবস্ত ছিল। তবে, এবারে সেই ভোটের আলাদা নিয়ম এসেছে। এবারে সেই বিশেষ ব্যালটির নাম নেকেড ব্যালট। শুনতে আশ্চর্য বা অবাক লাগলেও ঠিক এইভাবেই পুরো ব্যাপারটি হবে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক এই বিশেষ বিষয়টি ঠিক কি। নেকেড ব্যালট মানে, যদি কোনও ভোটার ব্যালট খামে বন্ধ না করেই ভোট দেওয়ার জন্য পাঠিয়ে দেন, তাহলে এটি নেকেড ব্যালট হিসাবে গণ্য করা হবে। মানে তাঁর ভোট ধরা হবে না। অর্থাৎ, তার ভোটটি একেবারে বাতিল বলে গণ্য হবে।

এবারে সেই নেকেড ব্যালট যাতে কেউ না পাঠান, সেই কারণেই এই বিশেষ প্রচার করলেন হলিউডের স্টারেরা। তাই তাঁরা ক্যামেরার সামনে একেবারে নগ্ন হয়ে গেলেন। এরপর তাঁরা বললেন, নগ্ন করে আপনার বিশেষ ব্যালটটি পাঠাবেন না।

এভাবে পাঠালে আপনার ভোট গণ্য হবে না। সেইকারনে সঠিক নিয়ম মেনে ভোট দিন। যাতে আপনার ভোটটি গণ্য করা হয়।