মাদকের কারনে এবারে বলিউড অভিনেতা বিবেক ওবেরয়ের বাড়িতে তল্লাসি

মাদকের কারনে এবারে বলিউড  অভিনেতা বিবেক ওবেরয়ের বাড়িতে  তল্লাসি

আজবাংলা   ফের মাদক মামলার জেরে আবার বলিউড কাঠগড়ায়। এবারে অভিনেতা বিবেক ওবেরয়ের বাড়িতে চলল তল্লাসি পর্ব। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ আজ সকালের দিকে বিবেক ওবেরয়ের মুম্বইয়ের বাড়িতে সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চের দল তল্লাসি চালায়।

এবারে দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সান্ডালহুড মাদক মামলা নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে। সেই সান্ডালহুড মাদক মামলায় অভিনেত্রী রাগিনী দ্বিবেদীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। সেইসময়ই দক্ষিণী অভিনেত্রীকে গ্রেফতারের পর ওই মামলায় উঠে আসে আদিত্য আলভার নাম।

বিবেকের শালাবাবু অর্থাৎ শ্যালক আদিত্য আলভা। এরপরই আদিত্য আলভাকে গ্রেফতার করা হবে বলে শোনা যায়। বিবেক ওবেরয়ের বাড়িতে আদিত্য আলভা লুকিয়ে থাকতে পারেন। সেই সন্দেহ থেকেই এরপর বিবেকের বাড়িতে তল্লাসি চালায় সিসিবি-র একটি দল।

যদিও সেখানে আদিত্য আলভার কোনও খোঁজ মেলেনি বলে খবর। এরপর কোনও খোঁজ না পেয়ে, তাঁর জন্য লুকআউট নোটিস জারি করে সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ। এই প্রসঙ্গে বেঙ্গালুরু পুলিশের যুগ্ম কমিশনার সন্দীপ পাতিল জানিয়েছেন, 'আদিত্য আলভা পলাতক। তাঁর আত্মীয় হলেন বিবেক।

আমাদের কাছে খবর আসে যে আলভা এখানে রয়েছে। সে জন্য আমরা তল্লাশি চালাই। তাই আদালতের থেকে ওয়ারেন্ট নিয়ে তাঁর মুম্বইয়ের বাড়িতে গিয়েছিল ক্রাইম ব্রাঞ্চ টিম।'



স্যান্ডেলউড মাদক মামলায় নাম জড়িয়েছে কর্নাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী জীবারাজ আলভার ছেলে আদিত্য আলভার। কর্নাটকের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির গায়ক ও অভিনেতাদের মাদক পাচারের অভিযোগে মামলা চলছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ।

কন্নড় অভিনেত্রী রাগিনী দ্বিবেদী ও সঞ্জনা গালরানি-সহ ১৫ জনকে এই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে বীরেন খান্না ও রাহুল থনসেও। জানা যাচ্ছে, বিবেক ওবেরয়ের শ্যালক আদিত্য আলভার যে বাগান বাড়ি রয়েছে, সেখানে প্রায় প্রত্যেক সপ্তাহে পার্টির আয়োজন করা হত।ওই পার্টিতেই দক্ষিণী সিনেমা জগতের বহু তারকা হাজির হতেন এবং মাদক সেবন করতেন বলে অভিযোগ।