স্বস্তির ঝড়বৃষ্টি কতদিন, জানাল হাওয়া অফিস

স্বস্তির ঝড়বৃষ্টি কতদিন, জানাল হাওয়া অফিস

বৈশাখের সকালে গনগনে তাপ উধাও! বদলে ঠান্ডার শিরশিরানি কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায়। শনিবারের পর রবিবারও সন্ধ্যার পর কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলা ঝড়বৃষ্টির সাক্ষী থেকেছে। রবিবার মহানগরে ঘণ্টায় ৬৯ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়েছে। কলকাতার পাশাপাশি জেলাতেও ঝড়বৃষ্টি হয়েছে। যার জেরেই দহনজ্বালা থেকে অনেকটই রেহাই পেয়েছেন বঙ্গবাসী।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা যাচ্ছে, আজও কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে।  আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা যাচ্ছে, সোমবার উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, কলকাতা, হুগলি, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান, বীরভূম, নদিয়া, মুর্শিদাবাদে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

বৃষ্টির সঙ্গে ঘণ্টায় ৫০-৬০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। আগামী তিনদিনে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ২ থেকে ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা নামতে পারে।  দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি করেছে হাওয়া অফিস। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদা ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

বৃষ্টির সঙ্গে কোথাও কোথাও ঘণ্টায় ৩০-৪০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও আগামী তিনদিন ২-৪ ডিগ্রি নামতে পারে তাপমাত্রা।  সোমবার কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আসানসোলে পারদ ছুঁয়েছে ৩৪.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বহরমপুরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বিষ্ণুপুরে পারদ ছুঁয়েছে ৩৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বর্ধমানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কোচবিহারে তাপমাত্রা ছুঁয়েছে ৩০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ডায়মন্ড হারবারে পারদ ছুঁয়েছে ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দিঘায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দমদমে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছুঁয়েছে ৩৪.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সল্টলেকে পারদ ছুঁয়েছে ৩৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কৃষ্ণনগরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মালদায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মেদিনীপুরে পারদ ছুঁয়েছে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শ্রীনিকেতনে তাপমাত্রা ৩৩.৬ ডিগ্রি। এ বছর এপ্রিল মাসে অসহনীয় গরমে হিমশিম খেতে হয়েছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গকে। গত সপ্তাহে কলকাতাতে তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চল্লিশ ডিগ্রির ঘরে ঘোরাফেরা করছিল।

কলকাতার পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতেও তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। তীব্র গরমে স্বস্তি পেতে দক্ষিণবঙ্গবাসী চাতক পাখির মতো বৃষ্টির অপেক্ষা করছিলেন। শেষমেশ এপ্রিলের একেবারে শেষলগ্নে বারিধারায় ভিজেছে রোদে তেতেপুরে থাকা দক্ষিণবঙ্গের মাটি।