এখন বাড়িতে খুব সহজেই করে ফেলুন ঢোকলা

এখন বাড়িতে খুব সহজেই করে ফেলুন ঢোকলা

আজবাংলা    ঢোকলার নাম কমবেশি সবাই শুনেছেন। অনেকেই খেতে খুব পছন্দ করেন। এটি সাধারণত গুজরাটের জাতীয় খাবার। কিন্তু এটি এখনো পর্যন্ত কলকাতায় সব জায়গায় পাওয়া যায় না।

আসুন এবারে ঘরে বসেই করে ফেলুন, ঢোকলা। আসুন দেখে নেওয়া যাক, এটি বানাতে ঠিক কি কি উপকরন লাগছে।

উপকরণ-  বেসন (১ কাপ), সুজি (১ টেবিল চামচ), লেবুর রস (১- ১/২ চা-চামচ), কাঁচালঙ্কা ও আদা বাটা (১ চা-চামচ), জল (৩/৪ কাপ), নুন (১ চা-চামচ), টেস্টিং সল্ট (১ চিমটি), টক দই (১/৪ কাপ), তেল (১ চা-চামচ)।

টেম্পারিং এর উপকরণ-   তেল (২ টেবিল চামচ), কালো সর্ষে (গোটা, ১/২ চা চামচ), তিল (১ চা-চামচ), জিরা (১ চা-চামচ), চিনি (১ টেবিল-চামচ), কাঁচালঙ্কা ফালি করা (৪-৫ টা), ধনেপাতা কুচি (২ টেবিল চামচ), নারকেল করানো (২ টেবিল চামচ), জল (১/৪ কাপ)।

প্রণালী-   ঢোকলার সকল উপকরণ একত্রে মিশিয়ে কেকের ব্যাটারের মতো তৈরি করুন। চেখে দেখুন। এরপরে এই ব্যাটারটা একটি বেকিং মোল্ডে ঢেলে নিন। একটি বড় পাত্রে বেশ খানিকটা জল ফোটাতে থাকুন। এটি স্টিমার হিসেবে কাজ করবে। এরপর জলের পাত্রের ভেতরে একটি স্ট্যান্ড রেখে দিয়ে মুখটি ঢেকে দিন।

স্ট্যান্ডের উপরে বেকিং মোল্ড বসিয়ে ভালো করে পুরোটা ঢেকে দিন ও রান্না করতে থাকুন। বিষয়টি পুডিং যেভাবে ওভেন ছাড়া বানান ঠিক তেমনটিই হবে। ঢোকলা তৈরি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে টেম্পারিংয়ের জন্য একটি ছোটো প্যানে তেল গরম করে এতে সর্ষে দানা দিন। ফুটে উঠলে এতে জিরা ও তিল দিয়ে নেড়ে নিন।

এরপর কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নিন। ১/৩ কাপ জলে চিনি গুলিয়ে দিয়ে দিন প্যানে। জল ফুটে উঠলে আরও কিছুক্ষণ আঁচে রেখে তৈরি করে নিন। ১০-১২ মিনিট পর স্টিমারের ভেতরে বেকিং মোল্ডে একটি কাঠি ঢুকিয়ে দেখুন ঢোকলা তৈরি হয়েছে কিনা। যদি কাঠি পরিষ্কার হয়ে বেড়িয়ে আসে তাহলে বুঝবেন তৈরি হয়ে গিয়েছে।

ঢোকলা বের করে মোল্ডে রেখেই নিজের পছন্দমতো আকারে কেটে নিন এবং উপরে টেম্পারিংয়ের মিশ্রণটি ভালো করে ছড়িয়ে দিন। এভাবে খানিকক্ষণ রেখে দিন।এরপর উপরে ধনেপাতা ও নারকেল করানো দিয়ে সসের সাথে পরিবেশন করুন মজাদার ঢোকলা।