শীতের সন্ধ্যায় খেয়ে দেখুন ওটসের কাটলেট

শীতের সন্ধ্যায় খেয়ে দেখুন ওটসের কাটলেট

আজবাংলা   ওজন কমাতে ওটস কার্যকরী একটি খাবার। পর্যাপ্ত ফাইবার থাকায় ওটস খেলে দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা থাকে। তাই বারবার খাওয়ার প্রয়োজন হয় না। চিকিৎসকরাও সকালের নাস্তায় কিংবা দুপুরের খাবারে ওটস খেতে বলেন। ওটসে আছে প্রচুর ফাইবার, প্রোটিন, জিংক, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, কপারের মতো পুষ্টিগুণ।

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে শুরু করে রক্তে শর্করার মাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করে ওটস। এ ছাড়াও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমায়। অনেকেই হয়তো ওটসের একঘেয়েমি পদ খেয়ে বিরক্ত। চাইলে কিন্তু ওটস দিয়েও তৈরি করে নেওয়া যায় স্বাস্থ্যকর সব রেসিপি।

যা আপনার পেটও ভরাবে আর ওজনও কমাবে। তেমনই এক রেসিপি হলো ওটস কাটলেট।

উপকরণ-  ১. ভেজে নেওয়া ওটস আধা কাপ, ২. পনির ৪ টেবিল চামচ, ৩. গাজর কুচানো ১ কাপ, ৪. সেদ্ধ আলু ১ চা চামচ, ৫. আদা বাটা ২ চা চামচ, ৬. তেল পরিমাণমতো,

৭. নুন আধা চা চামচ, ৮. গরম মশলার গুঁড়া ১ চা চামচ, ৯. লঙ্কার গুঁড়া ১ চা চামচ, ১০. কাঁচা লঙ্কা বাটা দেড় চা চামচ।

পদ্ধতি-   প্রথমে সেদ্ধ আলুগুলো ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। তারপর একটি পাত্রে ভেজে নেওয়া ওটস, ব্লেন্ড করা আলু, আদা বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা, গাজর কুচি, নুন, লঙ্কার গুঁড়া এবং গরম মশলা একসঙ্গে মিশিয়ে নিন।

পনির কুচি করে মিশ্রণের মধ্যে দিয়ে দিন। ভালোভাবে সব উপকরণ মিশিয়ে ময়দার মতো ডো তৈরি করুন। এবার ওই ডো থেকে ছোট ছোট করে লেচি কেটে হাতের তালুর সাহায্যে বল তৈরি করুন।

এরপর হাতের সাহায্যে বলগুলো কাটলেটের আকারে চ্যাপ্টা করে নিন। মাঝারি আঁচে প্যান বসিয়ে তেল দিয়ে গরম করুন। এরপর কাটলেটগুলো দিয়ে বাদামি রঙা করে ভেজে নিন।

টিস্যুর উপর উঠিয়ে রাখুন। তাহলে টিস্যু তেল শুষে নেবে। টমেটো সস দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন সুস্বাদু ওটসের কাটলেট।