ফরাসি সেনাদের অভিযানে নিহত আইএস নেতা ,দাবি ফ্রান্সের

ফরাসি সেনাদের অভিযানে নিহত আইএস নেতা ,দাবি ফ্রান্সের

আইসিস (ISIS) শিবিরে বড় ধাক্কা, বিশেষ অভিযানে খতম করা হল গ্রেটার সাহারার আইসিস প্রধান আদনান আবু ওয়ালিদ আল-শাহরাউয়িকে (Adnan Abu Walid al-Sahrawi)। মার্কিন সেনা ও বিদেশি স্বেচ্ছাসেবক-সমাজকর্মীদের উপর প্রাণঘাতী হামলা চালানোর অভিযোগে দীর্ঘদিন ধরেই তাঁকে খোঁজা হচ্ছিল। অবশেষে সাফল্য পেয়েছে ফরাসি সেনা (French Troops), এমনটাই জানানো হয়েছে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাক্রঁ(Emmanuel Macron)-ও টুইট করে জানিয়েছেন, আইসিস নেতা আদনান আবু ওয়ালিদ আল-শাহরাউয়িকে খতম করেছে ফরাসি সেনা। ওই অভিযান সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য না জানালেও প্রেসিডেন্ট বলেন, “সাহেলে সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে আমাদের অভিযানে ফের একবার সাফল্য মিলল।” 

ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লি জানান, ফ্রান্সের “বারখান শক্তি”র হামলাতেই প্রাণ হারিয়েছে শাহরাউয়ি। সাহেলে জিহাদিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় ফরাসি সেনার এই বাহিনী। এই অভিযানে সাফল্য মেলায় বড় ধাক্কা খাবে জঙ্গি সংগঠনগুলি। তবে আমরা যুদ্ধ চালিয়ে যাব। জানা গিয়েছে, ২০২০ সালে ফ্রান্সের ত্রাণকর্মীদের হত্যার পিছনে এই জিহাদি নেতারই হাত ছিল।

২০১৭ সালে নাইজারে মার্কিন বাহিনীর উপরও হামলা চালায় আইসিস বাহিনী। মার্কিন বাহি্নীর উপর হামলা চালানোর পরই আমেরিকার তরফে আদনানের মাথার দাম ৫০ লক্ষ ডলার ধার্য করা হয়। ২০১৫ সালে গ্রেটার সাহারায় শাহরাউয়ির নেতৃত্বেই আইসিস বাহিনীর প্রতিষ্ঠা হয়, এই গোষ্ঠী আইএসজিএস নামে পরিচিত। মালি, নাইজার ও বুরকিনা ফাসোয় একাধিক হামলার পিছনে এই গোষ্ঠীরই হাত রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

২০২০ সালের ৯ অগস্ট আইএসজিএসের প্রধান আদনান নিজেই ছয়জন ফরাসি ত্রাণকর্মী ও নাইজারে তাদের গাড়ির চালক ও গাইডকে খুন করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। বছর ঘুরতেই তার প্রতিশোধ নিল ফরাসি সেনা।চলতি বছরের জুন মাস থেকেই গ্রেটার সাহারায় অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। একের পর এক আইসিস জঙ্গিদের ঘাঁটিতে হামলা চালানো হয়। এর ফলে আগে থেকেই ওই অঞ্চলে চাপে পড়ে ছিল আইসিস গোষ্ঠী। এ বার শীর্ষনেতার মৃত্যুতে ওই এলাকায় আইসিস গতিবিধি ও কার্যকলাপ অনেকটাই ধাক্কা খাবে বলে মনে করছে ফ্রান্স।