মকর সংক্রান্তিতে এই নিয়ম মেনে চললে আপনিও হতে পারেন ধনকুবের!

মকর সংক্রান্তিতে  এই নিয়ম মেনে চললে আপনিও হতে পারেন ধনকুবের!

হিন্দু ধর্মশাস্ত্র অনুসারে মকর সংক্রান্তির (Makar Sankranti ) দিনে সূর্যদেব (Lord Surya) পুত্র শনিদেবের (Lord Shani) সঙ্গে দেখা করেন। ভারতীয় জ্যোতিষশাস্ত্র মতে ওই দিনে ধনু রাশি ছেড়ে সূর্য দেবতা মকর রাশিতে প্রবেশ করেন। মকর রাশির অধিপতি হলেন শনিদেব। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, মকর সংক্রান্তিতে সূর্য দেবতা তাঁর পুত্র শনিদেবকে তাঁর বাড়িতে দেখতে আসেন।

যাঁরা মকর সংক্রান্তির দিন সূর্যদেবের পূজা করেন, তাঁরা শনির দোষ থেকে মুক্তি পান এবং তাঁদের ঘর ধন-সম্পদে ভরে যায়। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে সূর্যের তেজের সামনে শনিদেব তেজহীন হয়ে পড়েন, তাই এই দিনে শনির প্রভাব কমে যায়। দেবীপুরাণে শনিদেবের সঙ্গে সূর্য দেবতার সাক্ষাতের কাহিনী বর্ণিত হয়েছে। আসুন সেই গল্প সম্পর্কে এবং যে উপায়ে আমরা সম্পদ পেতে পারি সে সম্পর্কে জেনে নিন।

 দেবী পুরাণে বলা হয়েছে যে সূর্য দেবতা যখন প্রথম তাঁর পুত্র শনিদেবের সঙ্গে দেখা করতে যান, তখন শনিদেব তাকে কালো তিল উপহার দিয়েছিলেন, তাতেই পূজা করা হয়েছিলেন পিতার। এতে সূর্যদেব খুব খুশি হয়েছিলেন। ফলে শনিদেব আশীর্বাদ পেয়েছিলেন যে সূর্যদেব যখন মকর রাশিতে তাঁর বাড়িতে আসবেন তখন তাঁর ঘর ধন-সম্পদে ভরে যাবে। এই ভাবে মকর সংক্রান্তি উপলক্ষে সূর্য যখন শনির গৃহে প্রবেশ করেন, তখন তাঁর ঘর ধন-সম্পদে ভরে যায়। 

১. মকর সংক্রান্তির দিন, যদি কালো তিল দিয়ে সূর্য এবং শনিদেবকে পূজা করা হয়, তবে অবশ্যই উভয়েরই আশীর্বাদ আমরা পাব। এমনকী, আমাদের উপর শনির দোষের প্রভাব কম হবে বা শনির অশুভ প্রভাব কমবে। সংসারে ও জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে।

২. মকর সংক্রান্তি উপলক্ষ্যে, আমরা যদি কালো তিল দিয়ে সূর্যদেবের পূজা করি, তাহলে আমাদের ঘরও ধন-সম্পদে ভরে যাবে, যেমনটি শনিদেবের ক্ষেত্রে হয়েছিল। এই দিনে স্নানের পর পরিষ্কার কাপড় পরিধান করা উচিত এবং তার পর পূজা শুরু করা উচিত।

৩. এর পর তামার পাত্রে জল ভরে তাতে কালো তিল, চাল, ফুল ও লাল চন্দন দিতে হবে। তার পর সূর্য মন্ত্র জপ করার সময় সেই জল সূর্যদেবকে অর্পণ করতে হবে। এতে করে সূর্য দেবতা প্রসন্ন হবেন এবং আমরাও সুখ ও সৌভাগ্য লাভ করব।