ডাক ব্যবস্থার পর ভারতীয় রেলে এবার কোপ পড়ল শতাব্দী প্রাচীন এই পদে!

ডাক ব্যবস্থার পর  ভারতীয় রেলে  এবার কোপ পড়ল শতাব্দী প্রাচীন এই পদে!

আজ বাংলা: করোনার কবলে পড়ে ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে ভারতীয় রেল । এই অবস্থা থেকে খানিক স্বস্তি পেতে যদিও ইতিমধ্যেই বেশ কিছু কড়া পদক্ষেপ করেছে ভারতীয় রেল। 


কিছুদিন আগেই একটি নির্দেশিকায় রেল বোর্ডের তরফে প্রত্যেক আধিকারিককে অনুরোধ করা হয়েছে ডাক মেসেঞ্জারদের মাধ্যমে বার্তা দেওয়া নেওয়ার পরিবর্তে যে কোনও যোগাযোগের জন্যে ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের সুবিধে ব্যবহার করতে। বন্ধ করে দেওয়া হবে ১৬০ বছর পুরনো ডাক ব্যবস্থা।

এবার সেই পথেই হেঁটে আরও এক শতাব্দী প্রাচীন পরিষেবা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় রেল। জানা গিয়েছে, ব্রিটিশ যুগ থেকে চলে আসা আরও একটি পদের বিলুপ্তি হতে চলেছে খুব তাড়াতাড়ি। রেলের উচ্চ পদস্থ কর্মীদের বাসভবনে টেলিফোন অ্যাটেনডেন্ট এবং ডাক খালাসির কাজ করা বাংলো পিওনের পদও উঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় রেল ।

বৃহস্পতিবার রেল বোর্ডের তরফে প্রকাশিত একটি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে এই সিদ্ধান্তের কথা। ব্রিটিশ যুগ থেকে চলে আসা এই প্রথার অব্যবহার নিয়ে বহুবার অভিযোগ উঠেছে রেল আধিকারিকদের বিরুদ্ধে। রেল বোর্ড স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে এই পদে আর কোনও নতুন নিয়োগ হবে না। এখানেই শেষ নয়। ১ জুলাই, ২০২০ থেকে এই পদে যাঁদের যোগ দেওয়ার কথা ছিল, তাঁদের চাকরির শর্তও রিভিউ করবে রেল বোর্ড।


 রেলের প্রতি শাখা এবং বিভাগে এই নির্দেশ মেনে চলার ঘোষণা করা হয়েছে এই নোটিশে। গ্রুপ ডি বিভাগের অস্থায়ী কর্মী হিসেবেই শুরুতে বিবেচিত হন TADK কর্মীরা। কর্মক্ষেত্রে ৩ বছর পূরণ করার পর দিতে হয়ে স্ক্রিনিং টেস্ট। সেই পরীক্ষায় পাশ করলে তবেই চাকরি পাকা হয়।

 এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘সব দিক থেকে ভারতীয় রেল দ্রুত বদল আনছে। বহু পুরনো অভ্যেস এবং ম্যানেজমেন্ট প্রক্রিয়া রিভিউ করা হচ্ছে। কীভাবে আরও বেশি করে রেলের প্রযুক্তি এবং কর্ম সংস্কৃতি বদলানো যায় তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’