অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে এগিয়ে এলেন আম্বানি, টাটার মতো শিল্পপতিরা

অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে এগিয়ে এলেন আম্বানি, টাটার মতো শিল্পপতিরা

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল দেশ। দৈনিক সংক্রমণ বিশ্বরেকর্ড গড়ে ফেলেছে টানা দু'‌দিন। অক্সিজেনের হাহাকার চলছে। অনেক কোভিড রোগীই মারা গেছেন অক্সিজেন না পেয়ে। এই পরিস্থিতিতে এগিয়ে এলেন মুকেল আম্বানি, রতন টাটা, নবীন জিন্দলের মতো শিল্পপতিরা। মুকেশ আম্বানির সংস্থা রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজ তাদের জামনগর রিফাইনারিতে প্রতিদিন ৭০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন উত্‍পাদন করছে।

যে রাজ্যগুলিতে সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি, সেখানে বিনামূল্যে এই অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে। গুজরাট, মহারাষ্ট্র ও মধ্যপ্রদেশের মতো রাজ্যগুলিতে শুরুতে পাঠানো হবে অক্সিজেন। তারপর অন্য রাজ্যেও যাবে। আরও জানা গেছে খুব শীঘ্রই উত্‍পাদন ১০০০ মেট্রিক টন করা হবে। পাশাপাশি সংস্থার কর্মী ও পরিবারের ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সদস্যদের জন্য টিকাদান কর্মসূচিও শুরু করতে চলেছে রিলায়েন্স।

অপরদিকে সরকারি সংস্থা সেল ইতিমধ্যেই ৩৫ হাজার টনের বেশি তরল অক্সিজেন সরবরাহ করেছে করোনা রোগীদের জন্য। সংস্থার বোকারো, ভিলাই, রাউরকেল্লা, দুর্গাপর ও বার্নপুর প্লান্টে এই অক্সিজেন তৈরি হচ্ছে। টাটা গ্রুপের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, তরল অক্সিজেন বহন করার জন্য ২৪ টি কন্টেনারের ব্যবস্থা তারা করেছে। প্রতিদিন ২০০ থেকে ৩০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে হাসপাতালে।

জেএসপিএল কর্পোরেটের চেয়ারম্যান নবীন জিন্দল অক্সিজেনের ঘাটতি নিয়ে কথা বলেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রা অশোক গেহলটের সঙ্গ। এমনকি মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের সঙ্গেও তাঁর কথা হয়েছে। নবীন জিন্দল বলেছেন, তাঁদের রায়গড়ের প্লান্টে অক্সিজেন উত্‍পাদন করা হচ্ছে। প্রয়োজনে রাজ্য সরকারকে প্রতিদিন ১০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন সরবরাহ করবে তারা।

জেএসডব্লু স্টিলের তরফে সজ্জন জিন্দল বলেছেন, তাদের মহারাষ্ট্র প্লান্টে প্রতিদিন ১৮০-৪০০ মেট্রিক টন লিকুইড অক্সিজেন তৈরি হচ্ছে। যা মহারাষ্ট্র সহ অন্য রাজ্য পাঠানো হবে। সরকারি সংস্থা আরআইএনএলের তরফে বলা হয়েছে, তাদের বিশাখাপত্তনম কারখানায় তৈরি ১০০ টন অক্সিজেন মহারাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা হয়ে গেছে।

এছাড়া অন্ধ্রপ্রদেশ সহ অন্যান্য প্রতিবেশী রাজ্যেও ১০০ মেট্রিক টন করে অক্সিজেন পাঠানো শুরু হয়েছে। এছাড়া ইন্ডিয়ান অয়েল, ভারত পেট্রোলিয়ামও নিজস্ব রিফাইনারিতে অক্সিজেন উত্‍পাদন শুরু করে দিয়েছে। যা বিভিন্ন রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে। আর্সেলর মিত্তল স্টিলের তরফেও প্রতিদিন ২০০ মেট্রিক টন লিকুইড অক্সিজেন বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।