কলকাতায় ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে জখম বহু

কলকাতায় ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে জখম বহু

ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল মানিকতলা-কাঁকুড়গাছি এলাকা। শনিবার রাতে ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ বাঁধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে আক্রান্ত হয় পুলিশও। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় দু'পক্ষের ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। খাস কলকাতার এই ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, মানিকতলার (Maniktala) ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের নতুন পল্লি এলাকা রণক্ষেত্রে চেহারা নেয় শনিবার রাতে।

সূত্রের খবর, ওইদিন সকালে জল তোলাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে বচসা বাঁধে। তখনের মতো সমস্যা মিটেও যায়। বেলা গড়াতেই রাজ্যের মন্ত্রী তথা স্থানীয় বিধায়ক সাধন পাণ্ডের মেয়ে শ্রেয়া পাণ্ডে ঘটনাস্থলে যান। বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ, সেই সময় বিতর্কিত মন্তব্য করেন শ্রেয়া। সেই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে নতুন করে অশান্তি ছড়ায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন স্থানীয় বিজেপি প্রার্থী কল্যাণ চৌবে।

এর পরই ওই অশান্তিতে রাজনৈতিক রঙ লাগে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। স্থানীয় নতুন পল্লি স্পোর্টিং ক্লাব কার দখলে থাকবে, তা নিয়ে সন্ধের দিকে ফের উত্তেজনা ছড়ায় এলাকা। বচসা থেকে তৃণমূল-বিজেপি কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি বেঁধে যায়। শুরু হয় ইঁটবৃষ্টি, ভাঙচুর। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে মানিকতলা থানা থেকে পুলিশের বিশাল বাহিনী আসে এলাকায়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে আক্রান্ত হন ২ জন পুলিশ কর্মী। অভিযোগ, পুলিশ কর্মীদের লক্ষ্য করে চলে ইঁটবৃষ্টি। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়িও। মাঝরাত অবধি উত্তেজনা চলে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। দুপক্ষেরই বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক জখম হয়েছেন বলে খবর। আহত দুজন পুলিশ কর্মীও। রবিবার সকাল পর্যন্ত এই ঘটনায় ৮ জনকে আটক করা হয়েছে বলে খবর।

ভোটের আবহে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় দফায় দফায় সংঘর্ষের খবর সামনে আসছে। এর মাঝে খাস কলকাতায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের জেরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। উল্লেখ্য, কয়েক সপ্তাহ আগে মানিকতলা এলাকায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বিজেপি প্রার্থী শিবাজি সিংহ রায়ও। এবার ফের একই এলাকায় তৃণমূল-বিজেপির সংঘর্ষ বাঁধল।