জেনে নিন পুষ্টিগুণে ভরপুর আমলকির উপকারিতা

জেনে নিন পুষ্টিগুণে ভরপুর আমলকির উপকারিতা

 

আমলকি প্রকৃতির অপার দান। অত্যধিক টক ফল হিসেবে পরিচিত আমলকী। আমলকী হল আমাদের দেহের জন্য সব চাইতে উপকারী ভেষজ ফলের মধ্যে একটি। আমলকি শরীরকে সুস্থ সবল রাখতে সাহ্যায্য করবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক আমলকির উপকারিতা সম্পর্কে—

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে : আমলকী চোখ ভাল রাখার জন্য খুবই উপকারী। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে  ফাইটো-কেমিক্যাল যা চোখের দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে : রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে আমলকি।  ব্রঙ্কাইটিস ও এ্যাজমার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আমলকির জুস খুবই উপকারী।

ত্বক উজ্জ্বল রাখতে :  মুখের দাগ ছোপ দূর করে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে আমলকি উপকারী। আমলকির পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগালে ত্বক পরিষ্কার ও উজ্জ্বল হয়। এ ছাড়া ত্বকের বলিরেখাও কমে যায়।

চুলের সুরক্ষায় : চুলের পরিচর্যার ক্ষেত্রে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। চুলের গোড়া মজবুত , চুল পড়া বন্ধ করে, চুলের খুসকির সমস্যা দূর করে ও পাকা চুল প্রতিরোধ করে আমলকির রস। এটি চুলের বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে।

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে : আমলকি ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। আমলকিতে পলিফেনল থাকায় তা ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।

হার্ট ভালো রাখতে : হার্ট ভালো রাখতেও আমলকি খুবই উপকারী। এতে উপস্থিত অ্যামিনো অ্যাসিড ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কারণে হার্টের কার্যকরিতা ভালোভাবে হয়। 

দাঁতের ব্যাথা নিরাময়ে :  দাঁতের ব্যথা ও ক্যাভিটি হলে আমলকির রসে সামান্য কর্পূর মিশিয়ে মাড়িতে লাগালে দাঁতের ব্যাথার যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। প্রতি ১০০ গ্রাম আমলকীতে যে পরিমাণ পুষ্টিগুণ রয়েছে  ০.০৩ মিলিগ্রাম থায়ামিন, ০.০১মিলিগ্রাম রিবোফ্লেভিন ও ১.২ মিলিগ্রাম লৌহ পাওয়া যায়, ৬০০ মিলিগ্রাম ভিটামিন, ৫০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম ও ২০ মিলিগ্রাম ফসফরাস থাকে।