জানুন শ্বেতী রোগ কেন হয় এবং ঘরোয়া দ্রব্যের সাহায্যে শ্বেতী রোগ থেকে মুক্তির উপায় !

জানুন শ্বেতী রোগ কেন হয় এবং ঘরোয়া দ্রব্যের সাহায্যে শ্বেতী রোগ থেকে মুক্তির উপায় !
শ্বেতী চর্ম রোগ

আজ বাংলা : আমাদের অনেকের শ্বেতী নামক চর্মরোগ দেখা যায় । এই অসুখটি মানুষের আত্মবিশ্বাস আঘাত করে । এই চর্ম রোগটির জন্য অনেকেই ইনসিকিউরিটি অনুভব করে । ত্বকের যে কোন অংশ এটি হতে পারে ।

শ্বেতির ফলে বিভিন্ন জায়গায় ত্বকের সাদা হয়ে যায় । এবং ত্বকের যে কোন অংশে হঠাৎ করে সাদা হয়ে গেলে তা দেখতে আশ্চর্যজনক লাগে । তবে এটি মরণব্যাধি রোগ একদমই নয় এবং ছোঁয়াচে রোগ নয় শুধুমাত্র সাধারণ একটি চর্মরোগ । 

এই প্রাথমিক অবস্থায় শনাক্ত করা যায় তাহলে চিকিৎসার মাধ্যমে এই রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায় । শ্বেতী রোগ টি ত্বকে ঘটে থাকে যখন ত্বক মেলানিন হারিয়ে ফেলে । এই মেলানিন আসলে আমাদের শরীরের ত্বক , চুল, চোখের মনি ইত্যাদির রং ধারণ করে থাকে ।

যখন কারোর ত্বকে মেলানিন উৎপন্নকারী কোষগুলি ক্ষয় হয় বা কমে যায় তখনই তার ত্বকে শ্বেতী রোগের সৃষ্টি হয় । বিশেষজ্ঞরা মনে করেন অটো ইমিউনিটি ডিসঅর্ডার এর ফলে মেলানিন এর অভাব দেখা যায় । যার ফলে ইমিউনিটি সিস্টেম মেলানিন উৎপন্নকারী কোষকে নিজেই মেরে ফেলে। এছাড়াও জিনগত প্রবণতা এবং ভিটামিন বি এর ঘাটতি ত্বকের তার ফলেও শ্বেতী রোগ হতে পারে।

এই রোগের অনেক চিকিৎসায় রয়েছে যেরকম ফটো কেমোথেরাপি, লাইট থেরাপি, লেজার থেরাপি, স্কিন গ্রাফটিং , মাইক্রো পিগমেন্টেশন ইত্যাদি। এইসব পদ্ধতি গুলো কেমিক্যাল ও সার্জিক্যাল ট্রিটমেন্ট । এই ট্রিটমেন্ট গুলো অনেক বেদনাদায়ক এবং প্রচুর পরিমানে ব্যবহার হয়ে থাকে। তাই কিছু ঘরোয়া চিকিৎসার মাধ্যমে এই রোগের মোকাবেলা করা যায় ।

চলুন তাহলে জেনে নিই প্রাকৃতিক উপাদানগুলো কি কি যার সাহায্যে এই রোগের মোকাবিলা করা যায়। শ্বেতী রোগ মোকাবেলায় ঘরোয়া উপাদান গুলি হল । প্রথমে কাজে লাগবে তা হল নারকেল তেল । নারকেল তেল ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে পারে । এছাড়াও মেলানিন গঠন করতে সাহায্য করে নারকেল তেল । দিনে দুই থেকে তিনবার আক্রান্ত স্থানে লাগাতে হবে নারকেল তেল কিছুদিন লাগানোর পরেই উপকার বুঝতে পারবেন । 

এছাড়া উপকারী দ্রব্য হল আদা । রক্ত সংবহন এর উন্নতি ঘটায় আদা এবং মেলানিনের নিঃসরণ কে উদ্দীপ্ত করে এই আদা। তাই আক্রান্ত স্থানে আদার রস তুলোয় করে নিয়ে লাগিয়ে রাখুন । এছাড়াও দিনে দুবার আদার রস যুক্ত চা পান করতে পারেন । 

এরপরে উপকারী দ্রব্য হল নিমপাতা । নিমপাতা ত্বকের যে কোন সমস্যা দূর করতে চমৎকার কাজ করে এছাড়াও রক্তকে বিশুদ্ধ করে নিমপাতা এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে । নিমপাতার রস করে ১ থেকে ২ চামচ করে প্রতিদিন খেতে হবে।এবং সামান্য নিমপাতার রস দই এর সাথে মিশিয়ে ত্বকে সাদা অংশে লাগিয়ে রেখে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলতে হবে । 

আরও একটি উপকারী দ্রব্য হল তামা । এই তামার দ্রব্য মেলানিন উৎপাদনে সাহায্য করে । তামার পাত্র বা তামার গ্লাসে জল রেখে সারারাত সাধারণ তাপমাত্রায় সেটি ঢাকা দিয়ে রেখে দিতে হবে । সকাল বেলা খালি পেটে এটি পান করতে হবে এটি মেলানিন উৎপাদনের পাশাপাশি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করে থাকে।

এগুলো ছাড়াও খাবারের প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে। যাদের এই শ্বেতী রোগ দেখা যায় তাদের চির সমস্ত খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে সেগুলো হলো জাম, কমলালেবু , মাখন , কাজুবাদাম, চকলেট, সামুদ্রিক মাছ , রসুন , আঙ্গুর, পেয়ারা,টমেটো , তরমুজ এবং কোন ধরনের কোল্ডড্রিংস ইত্যাদি । শ্বেতী রোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে ভিটামিন বি' এবং জিংক সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে প্রচুর পরিমাণে ।