বাজেট বক্তৃতা বয়কটের ঘোষণা বাম-কংগ্রেস জোটের

বাজেট বক্তৃতা বয়কটের ঘোষণা বাম-কংগ্রেস জোটের

একুশের বিধানসভা ভোটের আগে শেষ বাজেট। সেই বাজেটের বক্তৃতাপর্ব বয়কট করবে কংগ্রেস ও বাম পরিষদীয় দল। মঙ্গলবার বিধানসভার প্রেস কর্ণারে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানিয়েছেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান ও বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি রাজ্য বিধানসভার বাজেট অধিবেশন।

নজিরবিহীনভাবে এবারই প্রথম রাজ্যপালের বক্তৃতা ছাড়াই বাজেট অধিবেশন হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে অনেক আগেই প্রশ্ন তুলেছেন বাম ও কংগ্রেস পরিষদীয় দলের নেতারা। কিন্তু তা নিয়ে সরকারপক্ষের হেলদোল নেই বলেই অভিযোগ। এ প্রসঙ্গে মান্নান সাহেব বলেছেন, ''গত ১০ বছরে বিরোধী দলের কোনও কথাই এখানে শোনা হয়নি।

এবার যখন আমরা জানতে চাইলাম নজিরবিহীনভাবে রাজ্যপালের বক্তৃতা কেন হচ্ছে না। ১৯৬৩ সালের উদাহারণ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেবার ভারত-চিনের মধ্যে যুদ্ধ হয়েছিল। তাই জানুয়ারি মাসে রাষ্ট্রপতি সংসদে বক্তৃতা দিতে পারেননি। এখন কী তেমন কোনও পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে?'' অন্যদিকে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে যাদবপুরের বিধায়ক সুজন বলেছেন, ''গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে যে অধিবেশন হয়েছিল, সেই অধিবেশনই ধারাবাহিকক্রমে চলছে।

আবার শেষ বিজনেস এডভাইসারি কমিটির বৈঠকেও বাজেট প্রসঙ্গে আমাদের কোনও কথা জানানো হয়নি। ৫ তারিখ বিকেল ৪টেয় বাজেট। আর দুপুর ২টোয় বিজনেস এডভাইসারি কমিটির বৈঠক ডেকে বিরোধীদের জানানো হবে। বিরোধীদের অন্ধকারে রেখেই সরকারপক্ষ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তাই বাজেট বক্তৃতায় থাকার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।'' এদিনই মুখ্যমন্ত্রীকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন সুজন-মান্নান। রাজ্যের সামাজিক নিরীক্ষণ ব্যবস্থা এবং তার পরিকাঠামো দুর্বল হয়ে পড়ায় মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই চিঠিটি দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন তাঁরা।