পালঘরে সাধু হত্যার সময় কোথায় ছিলেন জয়া বচ্চন, প্রশ্ন তুলে জয়াকে তীব্র আক্রমণ লকেটের

পালঘরে সাধু হত্যার সময় কোথায় ছিলেন জয়া বচ্চন, প্রশ্ন তুলে জয়াকে তীব্র আক্রমণ লকেটের

আজবাংলা    সংসদ অধিবেশনে বলিউডের সঙ্গে মাদকযোগ থাকার কথা বলেছিলেন ভোজপুরি অভিনেতা তথা রাজনীতিক রবি কিষেণ। গেরুয়া শিবিরের সাংসদকে পালটা দিয়ে জয়া বচ্চন  বলেছিলেন, “যে থালায় খান, সেই থালাতেই ফুটো করছেন!” বলিউডের সিংহভাগের সমর্থন ইতিমধ্যেই আদায় করে নিয়েছেন জয়া।

খোদ বিজেপি সাংসদ-অভিনেত্রী হেমা মালিনী যখন জয়া বচ্চনের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তখন লকেট কিন্তু অন্য পথে হেঁটে মোক্ষম আক্রমণ করেছেন জয়াকে।পালঘরে সাধুদের হত্যার সময় কোথায় ছিলেন আপনি?”, জয়া বচ্চনকে কড়া ভাষায় আক্রমণ বাংলার বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের ।

মঙ্গলবার পার্লামেন্টে বিজেপি সাংসদ রবি কিষেণ এবং সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চনের তরজা নিয়ে তুমুল শোরগোল শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলের অন্দরে, সেই সংসদীয় বাগযুদ্ধের রেশ ধরেই এবার সুর চড়ালেন লকেট চট্টোপাধ্যায়।জয়ার এই বক্তব্যের পরেই তেড়েফুঁড়ে ওঠেন কঙ্গনা ।

বচ্চন-ঘরণী’কে এক হাত নিয়ে পাল্টা প্রশ্ন করেন, আজ যদি অভিষেক আত্মহত্যা করতো বা শ্বেতা’কে কেউ ড্রাগস দিত, তাহলেও কি তিনি একই কথা বলতেন ?কঙ্গনার এই বক্তব্যের পরেই ইন্ডাস্ট্রির অন্য একটি দল জয়ার স্বপক্ষে সালিশি করতে ময়দানে নেমে পড়ে । জয়ার ভিডিও ট্যুইট করেন তাপসী পান্নু, সোনম কাপুররা ।

এ বার মাদক-চক্র ইস্যুতে জয়ার সমর্থনে মুখ খুললেন অভিনেত্রী হেমা মালিনী । যদিও রাজনৈতিক মতাদর্শের দিক থেকে দু’টি আলাদা শিবিরের প্রতিনিধি দুই নায়িকা । তবে ইন্ডাস্ট্রির বিষয়ে একে অপরকে সমর্থন করলেন তাঁরা ।বুধবার সর্বভারতীয় একটি সংবাদ মাধ্যমে জয়ার বক্তব্যের প্রেক্ষিতে মুখ খোলেন ৭১ বছরের হেমা।

বলেন, ‘‘আমি এই ইন্ডাস্ট্রি থেকে আমার নাম,যশ, খ্যাতি, সম্মান...সব অর্জন করেছি । আমি সকলকে বলতে চাই, বলিউড সত্যিই সুন্দর । একটা সৃজনশীল জায়গা । এটা শিল্প এবং সংস্কৃতির ইন্ডাস্ট্রি । আমার ভীষণ কষ্ট হয় যখন শুনি মানুষ এই ইন্ডাস্ট্রির সম্বন্ধে খারাপ খারাপ মন্তব্য করছে । মাদক চক্র নিয়ে এত কথা বলছে, কিন্তু পৃথিবীর কোথায় এটা হয় না?

কিন্তু যদি সত্যিই দাগ লেগে থাকে, সেটা ধুয়ে-মুছে ফেলে এগিয়ে যেতে হবে ।’’প্রবীণ বলিউড অভিনেত্রীকে এক ইঞ্চি জায়গা ছেড়ে দিতে নারাজ লকেট! যে ইন্ডাস্ট্রির বিষয়ে কটু কথা শোনা না-পসন্দ জয়ার। সেই প্রসঙ্গ টেনেই লকেটের মন্তব্য, “বলিউডের একটা অংশ পচা দাঁতের মতো। এটা তুলে ফেলা উচিত, নতুবা সর্বাঙ্গে পচন ধরতে পারে!

পালঘরে সাধুদের হত্যার ঘটনার সময় হোক কিংবা নৌবাহিনীর প্রাক্তন আধিকারিকের উপর আক্রমণ, সেই সময়ে আপনি কোথায় ছিলেন জয়া বচ্চন? এই আচরণ ‘দ্বিচারিতা’ ছাড়া আর কিছুই নয়!” শুধু তাই নয়, সুশান্ত প্রসঙ্গ টেনে এনেও সপা নেত্রী জয়াকে কটাক্ষ করেন বিজেপি সাংসদ লকেট। প্রশ্ন ছোঁড়েন, “সুশান্ত সিং রাজপুত যখন বলিউড মাফিয়াদের চক্রান্তের শিকার হয়েছিলেন, তখন আপনি কোথায় ছিলেন?”