মহারাষ্ট্রের পুনরাবৃত্তি কি এবার দিল্লিতেও?

মহারাষ্ট্রের পুনরাবৃত্তি কি এবার দিল্লিতেও?

আন্দাজ আগেই করা হয়েছিল, এবার সত্যি সত্যিই বৈঠকের আগে উধাও হয়ে গেলেন বেশ কয়েকজন আপ বিধায়ক। দিল্লির আবগারি নীতি নিয়ে উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়ার বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত শুরু হতেই সরকার ভাঙানোর চেষ্টার অভিযোগ এনেছিল আম আদমি পার্টি। বিধায়কদের ২০ থেকে ২৫ কোটি টাকা অফার করা হচ্ছে বলেও দাবি করা হয় আম আদমি পার্টির তরফে।

বিধায়ক কেনাবেচা রুখতেই আজ বিধায়কদের নিয়ে বৈঠকের ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। এদিকে, সকালেই জানা যায় কমপক্ষে সাতজন আপ বিধায়কের খোঁজ মিলছে না। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। আজ সকাল ১১টা থেকেই আম আদমি পার্টির বিধায়কদের নিয়ে বিশেষ বৈঠকে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল।

কোনও বিধায়ক যাতে দল না ছাড়েন, তার জন্যই এই জরুরি বৈঠকের ডাক দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। গতকালই এই মর্মে আম আদমি পার্টির রাজনৈতিক বিষয়ক কমিটির তরফে একটি নির্দেশিকাও প্রকাশ করা হয়। এদিকে, সকাল থেকেই সাতজন বিধায়কের খোঁজ মিলছে না বলে জানা যায় দলীয় সূত্রে।  এই বিষয়ে আপ বিধায়ক দিলীপ পাণ্ডে বলেন, “সমস্ত বিধায়কদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

গতকালের বার্তা সকলের কাছেই পাঠানো হয়েছে এবং যাদের সঙ্গে এখনও যোগাযোগ করা যায়নি, তাদের খোঁজ করা হচ্ছে। আজকের বৈঠকে সকল বিধায়ককেই উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। বিজেপি আমাদের দল ভাঙার চেষ্টা করছে। কমপক্ষে ৪০ জন বিধায়ককে ভাঙিয়ে নিজেদের দলে টানার চেষ্টা করছে।” গতকালই আম আদমি পার্টির তরফে দাবি করা হয়,

মহারাষ্ট্রের মতোই দিল্লিতেও বিধায়ক ভাঙানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আম আদমি পার্টির বিধায়কদের দল ছাড়ার জন্য ২০ কোটি টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। যদি সঙ্গে কোনও বিধায়ককে সঙ্গে নিয়ে আসেন, তবে ২৫ কোটি টাকা দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং বলেন, “বিজেপি আমাদের দল ভাঙিয়ে, দিল্লি সরকারের পতন ঘটানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। তবে আপের প্যাক কমিটি দিল্লির মানুষদের আশ্বস্ত করতে চায় যে আমাদের দল মজবুত, কোনও বিধায়ক আম আদমি পার্টি ছেড়ে যাবে না।”