মালদহে থানার সামনে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ডাব বিক্রেতার

মালদহে থানার সামনে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ডাব বিক্রেতার

 হরিশ্চন্দ্রপুর  : মদ্যপ অবস্থায় থানার সামনেই গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আত্নহত্যার চেষ্টা করলেন এক ডাব বিক্রেতা। মালদহের Harishchandrapur হরিশ্চন্দ্রপুর থানার সামনে বুধবার দুপুরে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। যুবকের আর্ত চিৎকার শুনে থানা থেকে বেরিয়ে আসেন পুলিশকর্মী ও আইসি নিজেও। গায়ে কম্বল জড়িয়ে ডাব বিক্রেতাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন।

ততক্ষণে ওই ডাব বিক্রেতার শরীরর ৭৫ শতাংশ পুড়ে যায়। আইসি নিজেই টোটো ডেকে ওই ডাব বিক্রেতাকে হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করান। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সঙ্গে সঙ্গেই মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করানো হয়। পুলিশ জানায়, ওই ডাব বিক্রেতার নাম শিবু চক্রবর্তী। ঘটনার জেরে এদিন এলাকা জুড়েই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

দাম্পত্য কলহের জেরেই এই ঘটনা বলে প্রাথমিক তদন্তে সন্দেহ করছে পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, থানার উল্টোদিকে হাটখোলা। হাটখোলার পিছনেই বাড়ি শিবুর। থানার সামনে ভ্যানে ডাব বিক্রি করেন তিনি। পাশেই ছাতুর সরবত বিক্রি করেন তার স্ত্রী ফুলন সাহা চক্রবর্তী। কিন্তু বাড়িতে তো বটেই, বাজারেও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ লেগে থাকত।

এদিন আচমকাই শিবু থানার উল্টো দিকে দুর্গামণ্ডপের সামনে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে দেয়। তারপর লাইটার দিয়ে আগুন ধরায়। তারপর ওই অবস্থাতেই গোটা হাটকোলায় আর্ত চিৎকার করে ছুটতে থাকে সে। যন্ত্রনায় বাঁচাও বাঁচাও বলেও সে চিৎকার করে। ওই সময় থানা থেকে বেরিয়ে এসে আইসি তার গায়ে কম্বল জড়িয়ে আগুন নেভান।

হাটখোলার কয়েকজন দোকানী বলেন, গায়ে আগুন ধরানোর পর যন্ত্রনায় শিবু বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করছিল। আইসি এসে ওর গায়ে কম্বল জড়িয়ে আগুন নিভিয়ে হাসপাতালে পাঠান। হরিশ্চন্দ্রপুরের আইসি সঞ্জয় কুমার দাস বলেন, এখনও কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। দাম্পত্য কলহের জেরেই ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।