বিজেপির সঙ্গে বাম সমর্থকদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ত্রিপুরা, গ্ৰেফতার মানিক সরকার

বিজেপির সঙ্গে বাম সমর্থকদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ত্রিপুরা, গ্ৰেফতার মানিক সরকার

আগরতলা   করোনা আবহে সিপিএমের আন্দোলনকে ঘিরে দফায় দফায় সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠেছে ত্রিপুরা। যুযুধান দু’পক্ষ থেকে সব মিলিয়ে আহত কমপক্ষে ২০। গ্রেপ্তার হয়েছেন বিরোধী দলনেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার।জানা গেছে, বুধবার ১৬ দফা দাবিতে রাজ্যব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচিতে নামে সিপিআই ( এম ) । সাব্রুম’এর শিলাছড়ি এলাকায় তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি সমর্থকরা।

রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। একদল অপরদলের বিরুদ্ধে অভিযােগ তােলে। আগরতলা’তেও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে বাম কর্মীরা। নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার । পুলিশ তাদের কর্মসূচিতে বাধা দেয় এবং বিক্ষোভ তুলে দেওয়ার চেষ্টা করে । সেই সময়ই বহু দলীয় কর্মীর পাশাপাশি গ্ৰেফতার করা হয় মানিক সরকারকেও।

পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।রাজ‍্যের প্রাক্তন মুখ‍্যমন্ত্রী মানিক সরকার বলেন, একদিনে করােনা, অপরদিকে বাড়ছে দ্রব্যমূল্য। গণতান্ত্রিক পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযােগ করেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন বিজেপি বিরােধী ঐক্য ফ্রন্ট ‘ গড়ার ডাক দেন বর্ষীয়ান এই নেতা। তার মতে বর্তমানে বিজেপি’কে রুখতে হলে বাকি সব দলকে সমানভাবে চিন্তাভাবনা করতে হবে।তবে রাজ্যের শাসকদল বিজেপির অভিযােগ, আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ার পর বিভিন্ন এলাকায় প্ররােচনা দিচ্ছে সিপিআই ( এম )।

পালটা মানিকবাবু জানিয়েছেন , ত্রিপুরা’র রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকার সব দিক দিয়ে ব্যর্থ।এ দিকে এ দিকে সাব্রুম, কুমারঘাট, গন্ডাচেরা, বেলোনিয়া ও অন্যান্য অংশে শাসক ও বিরোধী গোষ্ঠীর সংঘর্ষে আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। আহতদের মধ্যে দুই দলেরই সমর্থক রয়েছেন। সাব্রুমের শিলাছড়িতে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। গাড়ি-বাইক জ্বালানো হয়। আহতদের মধ্যে দুই দলেরই সমর্থক রয়েছেন। পুলিশ কড়া হাতে পরিস্থিতি দমন করে। অনেককে গ্রেফতার করা হয়।