অবিশ্বাস্য, উল্কাপাত হতেই চোখের পলকে কোটিপতি যুবক

অবিশ্বাস্য, উল্কাপাত হতেই চোখের পলকে কোটিপতি যুবক

আজবাংলা    হিন্দি কথাতেই আছে, ওপরওয়ালা যাব দেতে হ্যাঁয়, তাব ছ্যাপর ফার কে দিতে হ্যাঁয়। ঠিক এমনটাই হয়েছে, ইন্দোনেশিয়া (Indonesia)’র এক যুবকের জীবনে। হঠাৎ করে তিনি পেয়ে গেছেন ১০ কোটির বেশি টাকা। আসুন দেখে নিন পুরো ঘটনাটি।

ইন্দোনেশিয়ার সংবাদমাধ্যম সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, এক ব্যক্তি বাড়ির কাছে একটি কফিন তৈরির কাজ করছিলেন। তিনি হলেন উত্তর সুমাত্রার (Sumatra) কোলাঙ্গের বাসিন্দা জোসুয়া হুটা গালুঙ্গ (Josua Hutagalung)। এবারে তাঁর বাড়ির টিনের চালে হঠাৎই চলে আসে এক উল্কা।

সেটি তাঁর বাড়ির টিন ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে যায়। গালুঙ্গ ঘরে গিয়ে দেখেন, একটি বড় পাথরখণ্ডের মতো জিনিস তাঁর ঘরের মেঝেতে অনেকটা গেঁথে রয়েছে। প্রচণ্ড গরম অবস্থাতেও ছিল অদ্ভূতদর্শন ওই পাথরটা। এরপর তাঁর পাড়ার প্রতিবেশীদের ঘরে এনে দেখান পুরো বিষয়টি।

এরপরটা ইতিহাস। বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে জানান, সেটি সাড়ে চার বিলিয়ন বছরের পুরনো একটি উল্কাপিণ্ডের অংশ। আর তার মূল্য হল প্রতি গ্রাম ৮৫৭ ডলার। অর্থাৎ এই উল্কাপিণ্ড (meteorite)টি বিক্রি করে ১০ কোটির বেশি টাকা রোজগার হবে জোসুয়ার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুতহারে এই খবরটি শেয়ার হচ্ছে। এই প্রসঙ্গে, ওই বস্তুটি বিক্রি করে ১০ কোটির বেশি টাকা পাব বলে জানতে পেরেছি। সেখান থেকে কিছু টাকা নিয়ে এলাকায় একটা গির্জা তৈরি করব। আমার তিনটে ছেলে থাকলেও একটা মেয়ে নেই। এখন সেই আশাও পূরণ হবে বলে মনে করছি।