ত্বকের যত্নে পুদিনা পাতা 

ত্বকের যত্নে পুদিনা পাতা 

সুগন্ধির জন্য পুদিনা পাতা অনেক বেশি জনপ্রিয়।এর পাতা সুগন্ধি হিসাবে রান্নায় ব্যবহার করা হয়। পুদিনা জীবাণুনাশক হিসাবে কাজ করে। কাশি,অরুচি ও পাকস্থলীর প্রদাহে পুদিনা উপকারী। পুদিনা পাতার চা বেশ জনপ্রিয়। এছাড়া পুদিনা পাতা রুপচর্চার কাজে ব্যবহৃত হয়।পুদিনা পাতা পুষ্টিগুণে ভরপুর, যা ত্বক সুস্থ রাখতে কার্যকরি। তাই আপনার স্কিন কেয়ার রুটিনে পুদিন অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। দেখে নিন ত্বকের যত্নে কীভাবে কাজ করে পুদিনা পাতা …… 


পুদিনা পাতায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট চোখের নীচের কালো দাগ কমাতে খুব কার্যকর। চোখের তলার ডার্ক সার্কেলে পুদিনা পাতার পেস্ট লাগিয়ে সারারাত রেখে দিন। এতে ডার্ক সার্কেল ধীরে ধীরে হালকা হবে।পুদিনা পাতার পেস্ট ব্রণের উপর লাগান এবং শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রেখে দিন। এতে ব্রণের দাগ দূর হবে এবং ত্বকের ছিদ্রও পরিষ্কার করবে।


পুদিনা পাতায় অ্যান্টি-সেপটিক বৈশিষ্ট্য বর্তমান, যা ত্বকে দাগ ও ব়্যাশ হতে বাধা দেয়। সূর্যের আলোতে ত্বকের ক্ষতিও হ্রাস করে পুদিনা। ত্বকে পুদিনা পাতার নির্যাস প্রয়োগ করুন এবং ভাল ফলাফলের জন্য মাসে একবার এই প্রক্রিয়াটি পুনরাবৃত্তি করুন।রোদে পোড়া ত্বকের জ্বালাপোড়া কমাতে পুদিনা পাতার রস ও অ্যালোভেরার রস একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগান।

 
পুদিনা পাতা মাইল্ড অ্যাস্ট্রিঞ্জেন্ট হিসেবে কাজ করে।এটি  ত্বকের ছিদ্র থেকে ময়লা অপসারণ করে এবং ত্বককে কোমল ও হাইড্রেট রাখে। এটি ত্বকের রক্ত সঞ্চালন উন্নত করতেও কার্যকরি। রিঙ্কেলস ও ফাইন লাইনসও প্রতিরোধ করে। পুদিনা পাতার অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য প্রদাহ রোধ করে এবং ব্রণও নিরাময় করে।

পুদিনা পাতা গায়ের রং উজ্জ্বল করতেও সাহায্য করে । পুদিনা পাতায় অ্যান্টি-সেপটিকের বৈশিষ্ট্য থাকায়, ত্বকের দাগ ও ফুসকুড়ি দূর করে। নিশ্ছিদ্র এবং উজ্জ্বল ত্বক পেতে পুদিনা পাতার রস ব্যবহার করতে পারেন। পুদিনা পাতায় অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি থাকায় এটি কাটা, ক্ষত, মশার কামড় এবং এমনকি চুলকানি ত্বক নিরাময়ে সহায়তা করে।