পড়াশোনার ফাঁকে "ঠাকুরের সাজ" বানানো শিখে চাকরির বিকল্প রাস্তা প্রস্তুত রাখছে নদীয়ার প্রীতম

পড়াশোনার ফাঁকে  "ঠাকুরের সাজ" বানানো শিখে চাকরির বিকল্প রাস্তা প্রস্তুত রাখছে নদীয়ার প্রীতম
মলয় দে   শান্তিপুর:-   পড়াশোনা করলেই যে চাকরি মিলবে এমন কথা বিশ্বাস করে না শান্তিপুর শহর 7 নম্বর ওয়ার্ডের ফটক পাড়ার বাসিন্দা তন্তুজিবি কিশোর খাঁর একমাত্র সন্তান প্রীতম। শান্তিপুর মিউনিসিপ্যাল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আগামী বছরের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী এই ছাত্র ।
এখন থেকেই নিজের পছন্দমত সৃজনশীলতার পেশার সঙ্গে যুক্ত হয়ে শিখছে ঠাকুরের সাজ বানানোর কাজ। এ বিষয়ে সম্পূর্ণ ভাবে সহযোগিতা করেছে বৈষ্ণব পাড়ার অমল কুন্ডু। তিনি একটি মুদি দোকান চালানোর সাথেই নেশা হিসাবে ঠাকুরের সাজ বানিয়ে পেয়েছেন সফলতা।
তাই তাকে শিক্ষাগুরু মেনেই সারাদিন পড়াশোনার ব্যস্ততার মধ্যেই দিনের মধ্যে দুই তিন ঘন্টা অমলবাবু কাছ থেকে শিক্ষা নেন প্রীতম। সে ছাত্রাবস্থা থেকেই কঠিন বাস্তবতায় আত্মউপলব্ধি করেছে অযাচিত বিষয়ে সময় নষ্ট না করে এখনই পছন্দসই উপযুক্ত পেশা নির্ধারণ করে সেই কাজে মনোনিবেশ করা।
সাংসারিক দুরাবস্থার কারণে হয়তো আগামীতে সম্পূর্ণ অপছন্দের একটি বিষয় অর্থ উপার্জনের জন্য নির্বাচন করতে হতে পারে! তাই পড়াশোনার সাথে আগেভাগেই পেশা নির্বাচনটাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।