এবার বাড়িতেই বানিয়ে নিন রেস্তোরাঁর মতো চিকেন বিরিয়ানি

এবার বাড়িতেই বানিয়ে নিন রেস্তোরাঁর মতো চিকেন বিরিয়ানি

আজবাংলা    বিরিয়ানির কথা শুনলে এমন অনেকেই আছেন যাঁদের খিদে হঠাৎ করে বেড়ে যায়। এমন অনেক খাদ্যরসিক আছেন, যাঁরা রেস্তোরাঁয় বসে ‘টাইম পাস’ করার জন্যেও বিরিয়ানি খেয়ে নেন। বাড়িতে ডায়নিং টেবিলে খাবার সাজানো, টিভিতে বা হাতের কাছে পড়ে থাকা কোনও ম্যাগাজিনে বিরিয়ানি দেখে অর্ডার দিয়ে টেবিলের খাবার ফের ফ্রিজে তুলে রাখেন।

কিন্তু মন চাইলেই তো আর যখন তখন হাতের কাছে বিরিয়ানি পাওয়া যাবে না! তাছাড়া বিরিয়ানি খেতে হলে রেস্তোরাঁ ছাড়া আর কী বা উপায় আছে? উপায় আছে। আজ জেনে নিন বাড়িতে বিরিয়ানি বানানোর সহজ কৌশল। আর মন চাইলেই চটজলদি বানিয়ে ফেলুন বিরিয়ানি! আজ রইল চিকেন বিরিয়ানি বানানোর সহজ রেসিপি।

চিকেন বিরিয়ানি বানাতে লাগবে:—

বাসমতী চাল ৭৫০ গ্রাম (বাঁশকাঠি চালেও করা যাবে)।

মুরগির মাংস দেড় কেজি (ব্রেস্ট আর লেগ পিস হলেই ভাল হয়)।

পেঁয়াজ কুচি ৪-৫টি বড় মাপের।

রসুন বড় 8 কোয়া।

কাঁচালঙ্কা-আদাবাটা ২ চামচ।

টক দই ১ কাপ।

গোটা মশলা যেমন- লবঙ্গ, দারচিনি, এলাচ, জায়ফল, জয়িত্রী, ধনে আন্দাজ মতো।

দুধে ভেজানো জাফরান বা কামধেনু রঙ সামান্য।

কেওড়া জল আন্দাজ মতো।

ঘি ৩-৪ চামচ।

বেরেস্তা বানানোর পদ্ধতি:—

পেঁয়াজ কুচি করে কিছু ক্ষণ দুধে ভিজিয়ে রাখুন। তেল খুব গরম হলে পেঁয়াজ কুচিগুলি দুধ থেকে তুলে নিয়ে ভাজুন। এতে পেঁয়াজে তাড়াতাড়ি বাদামি রঙ ধরবে এবং পেঁয়াজ কুচিগুলিও মুচমুচে হবে।

বিরিয়ানির মশলা বানানোর পদ্ধতি:—

প্রথমে গোটা মশলাগুলো মিক্সিতে পিষে নিন। এবার কাঁচালঙ্কা, পেঁয়াজ, রসুন ও আদা মিক্সিতে পেষ্ট করে রাখুন। টকদই— এ গুড়ো মশলাগুলো দিয়ে ফেটিয়ে রাখুন। এবার মাংসের মধ্যে সব বাটা মশলা এবং -গুঁড়ো মশলা মেশানো টক দই ও নুন-চিনি দিয়ে ম্যারিনেট করুন। জল দিতে হবেনা। বেশি সময় ধরে ম্যারিনেট করলে মাংস নরম হয়। ফ্রিজেও রাখতে পারেন বেশ কিছুটা সময়। এবার ম্যারিনেট করা মাংস ও গোটা আলু প্রেসার কুকারে দিয়ে ২-৩টি সিটি দিন। খেয়াল রাখবেন রান্নার সময় আঁচ হালকা করে নিতে হবে।

বিরিয়ানির ভাত তৈরির পদ্ধতি:—

চাল অন্তত ১ ঘণ্টা জলে ভিজিয়ে রাখুন। এবার একটিপাত্রে জল দিয়ে ফুটতে দিন। তাতে জল ঝরিয়ে চালগুলো দিয়ে দিন।ঐ সঙ্গে তেজপাতা ও নুন দিন। চালের পরিমাণ অনুযায়ী জল দিতে হবে। ভাত একটু শক্ত থাকতে নামিয়ে নিন। মশারির নেট বা মিহি তারের চালুনিতে ঢেলে দিয়ে ভাত ঝরঝরে করে নিন। এবার দুধে ভেজানো জাফরান ভাতের উপর ছড়িয়ে দিয়ে অথবা অতি সামান্য কামধেনু রং দিয়ে ভাত সামান্য ঝাঁকিয়ে নিন যাতে ভাতের সঙ্গে কামধেনু রং বা জাফরান ভাল করে মিশে যায়।

বিরিয়ানির সাজানোর বা লেয়ার বানানোর পদ্ধতি:—

একটি পাত্রে প্রথমে আন্দাজ মতো ভাত দিন। তারপর রান্না করা মুরগির মাংসের কয়েকটি টুকরো, আলু এরপর পেঁয়াজ ভাজা ছড়িয়ে দিন। আগের মতো একইভাবে সামান্য ঝাঁকিয়ে নিন যাতে ভাতের সঙ্গে সব উপকরণ ভাল করে মিশে যায়। সবশেষে কেওড়ার জল ছড়িয়ে দিন। এবার ৩-৪ চামচ ঘি ছড়িয়ে ঢাকা দিয়ে রাখুন।

এই বার ওভেনে একটা তাওয়া রেখে কিংবা একটি ফুটন্ত জলের পাত্রের উপর বিরিয়ানির পাত্রটি বসিয়ে রাখুন ২০—২৫ মিনিট মতো। বিরিয়ানির পাত্রের ঢাকনা ভাল করে বন্ধ করতে হবে। দরকার হলে মাখা ময়দার প্রলেপ দিয়ে ফাঁক বন্ধ করলে ভাল হয়।

ব্যস, এবার সাজিয়ে পরিবেশন করুন জিভে জল আনা চিকেন বিরিয়ানি।