এবার পুজোয় আপনার  ডেস্টিনেশন হোক নিরিবিলি নির্ঝঞ্ঝাট জুনপুট 

এবার পুজোয় আপনার  ডেস্টিনেশন হোক নিরিবিলি নির্ঝঞ্ঝাট জুনপুট 

ব্যাপক ছাড়ে শপিং করুন Amazon-এ

আমাদের রাজ্যের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার  অন্যতম  একটি সমুদ্র সৈকত হল জুনপুট। এই সমুদ্র সৈকতের  নীরবতা ও সৌন্দর্য্য মোহিত করে পর্যটকদের। কাঁথি থেকে প্রায় ৯ কিলোমিটার এবং দিঘা থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।সমুদ্রর সৈকত জুড়ে দাপিয়ে বেড়ায় লাল কাঁকড়ার দল। এখানে ঝাউবনে নানান রকমের পাখির দেখা পাবেন আপনি।গোপালপুরের কাছাকাছি অবস্থিত ব্যাংকপুর সমুদ্র সৈকত জুনপুটের খুব কাছেই রয়েছে। দুই থেকে তিন কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত এই এলাকা ভাল বালুকাময় সৈকত এটি।  কাছেই রয়েছে মাছ চাষ ও গবেষণা কেন্দ্র।

পূর্ব মেদিনীপুররের এই অঞ্চলের সঙ্গে জুড়ে রয়েছে ইতিহাস খ্যাত কপালকুন্ডলা মন্দিরের নাম।এটি দরিয়াপুর-পেটুয়াঘাট রোডের শেষে অবস্থিত। দরিয়াপুর-পেটুঘাট রোডের উপর অবস্থিত দরিয়াপুর বাতিঘর , দারিয়াপুর বাতিঘরের উপর থেকে এলাকার দৃশ্য দেখতে খুবই ভালো লাগবে। জুনপুটের যে রিসর্টে থাকবেন, তার পিছনেই দণ্ডায়মান লিটল উডস এই এলাকার অন্যতম প্রধান আকর্ষণ। পর্যটকদের থাকার জন্য জুনপুটের রয়েছে রিসর্ট। তবে আগেভাগে বুকিং না করলে ঘর পাওয়া মুশকিল হোয়ে পড়ে।

ব্যাপক ছাড়ে শপিং করুন Amazon-এ

অধিকাংশ ক্ষেত্রে পর্যটকরা দীঘা, মন্দারমণি, তাজপুর কিংবা গোপালপুরে থেকে সেখান থেকে জুনপুটে পিকনিক করতে আসেন। গাছপালায় ঘেরা বালিয়াড়িতে চড়ুইভাতির  ব্যবস্থাও রয়েছে। জুনপুট থেকে দীঘা, গোপালপুর, তাজপুর, মন্দারমণিতে পাড়ি জমানো যায় সহজে। কলকাতা থেকে ট্রেনে  কাঁথি স্টেশনে নেমে সেখান থেকে ৯ কিলোমিটার রাস্তা অতিক্রম করার জন্য স্থানীয় গাড়ি পাওয়া যায়। অনেকে দীঘা স্টেশনে নেমে সেই শহরে এক কিংবা দুই দিন থেকে গাড়িতে পৌঁছন জুনপুট।

ব্যাপক ছাড়ে শপিং করুন Amazon-এ