জাল শংসাপত্র তৈরি করে পাসপোর্টের আবেদন, ধৃত বাংলাদেশি যুবক

জাল শংসাপত্র তৈরি করে পাসপোর্টের আবেদন, ধৃত বাংলাদেশি যুবক

জাল শংসাপত্র তৈরি করে পাসপোর্টের আবেদন করেছিলেন এক যুবক। পুলিশি ভেরিফিকেশনে তা ধরা পড়ে। সেই অভিযোগে রবিবার রাজারহাটের রাইগাছি এলাকার একটি আবাসন থেকে গ্রেফতার করা হল বাংলাদেশের এক নাগরিককে। ধৃতের নাম গোবিন্দ সাহা (২৬)। প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, বাংলাদেশের চাঁদপুর এলাকার বাসিন্দা গোবিন্দ। তিনি ২০১২ সালে 'স্টুডেন্ট ভিসা' নিয়ে এ দেশে প্রবেশ করেন।

পড়াশোনার কারণেই এ দেশে আসা বলে পুলিশকে জানিয়েছেন গোবিন্দ। তাঁর ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছিল। এ দিকে তিনি একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি হবেন বলে ৯০-৯৫ হাজার টাকা খরচ করে কলকাতার এক ব্যক্তির মাধ্যমে জাল স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করেন বলেও অভিযোগ। সেই স্কুল সার্টিফিকেট নিয়ে কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন। শুধু তা-ই নয়, পুলিশ জানিয়েছে, ওই জাল সার্টিফিকেট দিয়ে এ দেশের ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, প্যান কার্ড সবই তৈরি করান ওই যুবক।

যখন ওই যুবক পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন, তখন তথ্য যাচাইয়ের জন্য পুলিশ তাঁর ফ্ল্যাটে ভেরিফিকেশনে যায়। সেই সময়েই পুলিশের সন্দেহ হয়। জানা যায়, তাঁর দেওয়া তথ্য জাল। এর পরেই বিষয়টি রাজারহাট থানায় জানানো হয়। তার ভিত্তিতে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নিউ টাউনের একটি আবাসনে বাড়ি ভাড়া নিয়ে আত্মগোপন করেছিল পঞ্জাবের দুই গ্যাংস্টার।

সম্প্রতি পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে তাদের মৃত্যু হয়। সেই সময়ে জানা যায়, ওই দুই দুষ্কৃতী ঘর ভাড়া নিয়েছিল অন্যের তথ্য ব্যবহার করে। এর পর থেকেই বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট প্রতিটি থানাকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি, পুলিশ ভেরিফিকেশনের ক্ষেত্রেও বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে। যার ফলে, রাইগাছির আবাসনে ভাড়ায় থাকা বাংলাদেশের ওই নাগরিকের প্রকৃত তথ্য পুলিশের সামনে এসেছে। পুলিশ সূত্রের খবর, কী ভাবে তিনি ওই জাল শংসাপত্র জোগাড় করলেন, তা দেখা হচ্ছে।