মৃত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকারের দেহ নেওয়া নিয়ে পুলিস-বিজেপি 'ধস্তাধস্তি'

মৃত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকারের দেহ নেওয়া নিয়ে  পুলিস-বিজেপি 'ধস্তাধস্তি'

'ভোট পরবর্তী অশান্তি' মৃত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকারের দেহ হাতে পেল পরিবার। দীর্ঘ চার মাস পর বৃহস্পতিবার কলকাতার NRS হাসপাতালের মর্গ থেকে দেহ হাতে পেল পরিবার। এই দেহ নিতে গিয়ে পুলিসের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের চরম বচসা বাধে। হাসপাতাল চত্বরে কার্যত ধস্তাধস্তিতে জড়ায় দু'পক্ষ। অবশেষে দেহ নিয়ে বিজেপি কার্যলয়ের উদ্দেশে রওনা দেন পরিবারের সদস্য এবং বিজেপি নেতা-কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারের হাতে দেহ তুলে দেওয়ার কথা ছিল। সেমতো NRS হাসপাতালের মর্গে পৌঁছে যান অভিজিৎ সরকারের দাদা বিশ্বজিৎ সরকার-সহ পরিবারের সদস্যরা। সেখানে যান বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং, নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেয়াল, শিবাজি সিংহ রায়, দেবদত্ত মাজি-সহ নেতা-কর্মী। তাঁদের অভিযোগ, পরিবারের হাতে দেহ তুলে দিতে ঢিলেমি করে পুলিস।

দেহ লোপাটের চেষ্টা করে প্রশাসন। এই অভিযোগ পুলিসের বিরুদ্ধে সরব হন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। দু'পক্ষের মধ্য়ে বচসা শুরু হয়। বিজেপি নেতা দেবদত্ত মাজির বিরুদ্ধে পুলিসকে ধাক্কা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। অভিযুক্ত দেবদত্ত মাজির পাশে দাঁড়ান রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, " সরকারের গালে থাপ্পর মারা উচিত। হোমগার্ডকে মেরেছে ঠিক করেছে। সামান্য মানবিকতা নেই।" এরপর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। বিজেপি সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয় মৃত অভিজিৎ সরকারের দেহ।