প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি সুরিনামের ভারতীয় বংশোদ্ভূত প্রেসিডেন্ট চন্দ্রিকাপ্রসাদ

প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি সুরিনামের ভারতীয় বংশোদ্ভূত প্রেসিডেন্ট চন্দ্রিকাপ্রসাদ

 বরিস জনসনের পরিবর্তে এ বারে প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হয়ে আসছেন চন্দ্রিকাপ্রসাদ সন্তোখি। দক্ষিণ আমেরিকার উত্তর-পূর্বে অবস্থিত সুরিনাম-এর প্রেসিডেন্ট ভারতীয় বংশোদ্ভূত চন্দ্রিকাপ্রসাদ। দিল্লিতে ২৬ জানুয়ারি কুচকাওয়াজের অনুষ্ঠানে তাঁকে নরেন্দ্র মোদীর পাশে দেখা যাবে বলে প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

গত সপ্তাহে বিদেশমন্ত্রক আয়োজিত প্রবাসী ভার্চুয়াল মাধ্যমে ভারতীয় দিবস সম্মেলনেও প্রধান অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছিল চন্দ্রিকাপ্রসাদকে। সেখানে ভিসা ছাড়া দুই দেশের নাগরিকদের অবাধ যাতায়াতের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি। ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুত করার বার্তা দিয়েছিলেন।

তার পরই প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয় বলে খবর। শুরুতে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিসকেই প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু করোনার নয়া স্ট্রেন ধরা পড়ার পর থেকে, অতিমারি নিয়ন্ত্রণই এখন প্রধান লক্ষ্য তাঁদের।

তাই সফর বাতিল করতে হয় বরিসকে। তার পর থেকে প্রধান অতিথি হিসেবে অনেকেরই নাম সামনে আছিল। তবে শেষমেশ চন্দ্রিকাপ্রসাদকেই আমন্ত্রণ জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০২০-র জুলাই মাসে সুরিনাম-এর নবম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন চন্দ্রিকাপ্রসাদ।

চন্দ্রিকাপ্রসাদের দল প্রগ্রেসিভ রিফর্ম পার্টি (পিআরপি) ৫১টির মধ্যে ২০টি আসনে জয়লাভ করে ক্ষমতা দখল করে। তাতে দেজি বাওতার্সের স্বৈরতান্ত্রিক জমানার অবসান ঘটে। ডাচ ভাষায় পিআরপি-কে ভুরিত্‍স্ত্রেবেন্দে হার্ভোরমিঙ্গসপার্তিজ অর্থাত্‍ ভিএইচপি বলা হয়। মূল ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের প্রতিনিধিত্ব করে এই দল। একসময় দলটির নাম ছিল 'ইউনাইটেড হিন্দুস্তানি পার্টি'।