অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যায় ভুগছেন? জেনে নিন কি করবেন ও কি করবেন না

অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যায় ভুগছেন? জেনে নিন কি করবেন ও কি করবেন না

আজবাংলা   বহু মহিলাদেরই অনিয়মিত ঋতুস্রাব হয়ে থাকে। কিন্তু মহামারী করোনা কালে এই সমস্যায় ভুগছেন হয়ত অনেকেই। এদের মধ্যে আবার কারও ডেট এগিয়ে যাচ্ছে, কারও পিছচ্ছে, কারও খুব কম হচ্ছে তো কারও হচ্ছে বেশি। অনেকের ক্ষেত্রে আবার দু-এক মাস পিছিয়ে যাচ্ছে, সেক্ষেত্রে গর্ভসঞ্চার হল ভেবে ভয় বাড়ছে ইত্যাদি।

এখন করোনার সংক্রমণের ভয়ে যাওয়া যাচ্ছে না ডাক্তারের চেম্বারে। সব মিলিয়ে একেবারে জটিল পরিস্থিতি। এর জেরে পরিণতি মুখে চোখে বিরক্তির ছায়া ও খিটখিটে মেজাজ ইত্যাদি। বিশিষ্ট ডাক্তারদের মতে, বেশি চিন্তা করলে সমস্যা বাড়তে পারে। সবথেকে বড় মেডিসিন হল চিন্তামুক্ত থাকতে হবে। এছাড়া আরও কিছু সমাধান আছে। আসুন চটজলদি দেখে নেওয়া যাক।

১} মন ভাল রাখতে ব্যায়াম করুন। রোজ মিনিট ২০ জোরে হাঁটুন। যোগা করা শুরু করুন। ২} স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পারেন। প্রয়োজনে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান ও ওষুধ খান। ৩} করোনার কারণে যদি মানসিক চাপ বাড়ে, শুধু পিরিয়ডের গোলমাল নয়, আরও অনেক সমস্যা হতে পারে। কাজেই নিজেকে চাপমুক্ত রাখার চেষ্টা করুন। ৪} সুষম খাবার খাওয়ার সঙ্গে কয়েকটি ঘরোয়া অনুপানও খেয়ে দেখতে পারেন।

আসুন দেখে নিন ঘরোয়া অনুপাতগুলি কি কি-  ১} এক চামচ আদা বাটা জলে ফুটিয়ে খান দিনে ৩ বার, খাবার খাওয়ার পরে। ২} গরম দুধে এক চামচ দারচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে পেট ব্যথা কিছুটা কমতে পারে। ৩} কাঁচা হলুদ হরমোনের মাত্রা ঠিক রাখে, প্রদাহ কম রাখে, ব্যথাও কমায়। কাজেই সকালে হলুদ-দুধ বা গোলমরিচ গুঁড়ো মিশিয়ে কাঁচা হলুদ বাটা খেতে পারেন ভাতের সঙ্গে।

৪} দু-চামচ জিরে সারা রাত জলে ভিজিয়ে রেখে সেই জল খান সকালে। ৫} অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারীর মজ্জা মধু দিয়ে খালি পেটে খাওয়া যায়। ৬} কয়েক মাস কাঁচা পেপের রস খেতে পারেন, তবে পিরিয়ড চলাকালীন খাবেন না।

দেখা গেছে, অনেক সময় পিলের সাহায্যে অসুখ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। অবিবাহিত মেয়েদের কন্ট্রাসেপটিভ পিল নেওয়ার ক্ষেত্রে অনেকে ভয় পান। মনে রাখা উচিত, এটা নেহাতই একটি ওষুধ।