রাজস্থানের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ভজনলাল শর্মা

রাজস্থানের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ভজনলাল শর্মা

রাজস্থানের নতুন মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন Rajasthan Chief Minister Bhajan Lal Sharma  ভজনলাল শর্মা। বিধানসভা দলের বৈঠকের পর বিজেপির তরফে এই ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং দলের অন্যান্য সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতিতে তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়। তিনি সাঙ্গানেরের একজন বিধায়ক এবং বিজেপির সাধারণ সম্পাদক। বিধানসভা দলের বৈঠকে ভজনলাল শর্মাকে বিধায়ক দলের নেতা নির্বাচিত করা হয়। বিজেপির টিকিটে জয়ী বিধায়করা তাঁকে তাঁদের নেতা হিসাবে নির্বাচিত করেন। পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতিতে সর্বসম্মতিক্রমে তিনি নির্বাচিত হন।

বিধায়ক দলের বৈঠকের আগে পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে দেখা করেছেন সিনিয়র নেতারা।  রাজস্থানের নতুন মুখ্যমন্ত্রীর নাম নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছিল। বলা হচ্ছিল মধ্যপ্রদেশের মোহন যাদবের মতো মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নতুন নাম ঘোষণা করতে পারে বিজেপি। বাস্তবেও তা দেখা গেল৷ বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া-সহ যে’কটি নাম উঠে আসছিল, সেগুলির উপর আস্থা না রেখে, এ বার নতুন মুখ ভজনলাল শর্মার উপরেই আস্থা রাখল গেরুয়া শিবির৷

একই ঘটনা দেখা গিয়েছিল মধ্যপ্রদেশের ক্ষেত্রেও৷ এখনও পর্যন্ত যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে, তাতে দেখা গিয়েছে,ভজনলাল শর্মা সাঙ্গানেরের বিধায়ক, তাঁর বাড়ি জয়পুরের জওহর সার্কেলে, তিনি ভরতপুরের মানুষ৷ দীর্ঘদিন ধরে তিনি সংগঠনে কাজ করছেন, বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক হিসাবেও কাজ করছেন। জয়পুরের সাঙ্গানেরের মতো নিরাপদ আসন থেকে প্রথমবার বিজেপি তাঁকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায়৷ ভজনলাল শর্মা ৪৮০৮১ ভোটে কংগ্রেসের পুষ্পেন্দ্র ভরদ্বাজকে পরাজিত করেন। 

২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে গোবলয়ের রাজ্যগুলিতে জাতপাতের সমীকরণ বড় ভূমিকা নিতে পারে। রাজনীতিকদের একাংশ মনে করছেন, সে কারণে ছত্তীসগঢ়ে আদিবাসী নেতা বিষ্ণুদেও সাই, মধ্যপ্রদেশে অনগ্রসর (ওবিসি) নেতা মোহন যাদবকে মুখ্যমন্ত্রী করার পর রাজস্থানে অগ্রাধিকার দেওয়া ব্রাহ্মণ নেতা ভজনকে। এতে বিজেপি ব্রাহ্মণ ভোটব্যাঙ্ক অনেকটাই সুরক্ষিত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

 বিজেপির একাংশ মনে করে, রাজস্থানে এক জন ব্রাহ্মণ নেতাকে মুখ্যমন্ত্রী করলে তা কখনওই অন্তত দলকে বিপাকে ফেলবে না। রাজস্থানে জাঠ আর রাজপুত ভোটারদেরই সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে এক সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিকে মুখ্যমন্ত্রী করলে অন্য সম্প্রদায় চটে যেতে পারে। তার প্রভাব পড়তে পারে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ভোটব্যাঙ্কে।  বিজেপি এবং রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘ (আরএসএস)-এর সঙ্গে ভজনের যোগসূত্র দীর্ঘদিনের।  ৫৬ বছরের ভজনের রাজনীতিতে প্রবেশ আরএসএসের ছাত্র সংগঠন এবিভিপির হাত ধরে। 

বিধায়ক হয়েছেন প্রথম বার। তবে ভজন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন চার বার। বরাবরই সংগঠনের দিকটি সামলেছেন। সেই এবিভিপিতে থাকার সময় থেকেই। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডার সঙ্গে সুসম্পর্ক রয়েছে তাঁর।  ২০২৩ বিধানসভা নির্বাচনে সঙ্গনেড় কেন্দ্রে সেখানকার প্রাক্তন বিধায়কের পরিবর্তে টিকিট দেওয়া হয় ভজনকে। অপেক্ষাকৃত সুরক্ষিত ওই আসনে লড়ে ৪৮ হাজার ভোটে জিতেছেন তিনি। হারিয়েছেন কংগ্রেস প্রার্থী পুষ্পেন্দ্র ভরদ্বাজকে। 

 তাঁর নাম মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য ঘোষণা হওয়ার পরেই ভজন জানান, তাঁর সরকার রাজস্থানবাসীর প্রত্যাশা পূরণ করবে। তিনি বলেন, ‘‘মানুষের যে প্রত্যাশা রয়েছে আমাদের থেকে, তা পূরণ করবেন রাজস্থানের বিধায়কেরা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে আমরা রাজস্থানের উন্নয়ন ঘটাব।’’  এখন থাকেন জয়পুরের জওহর সার্কলে। ভোটের আগে মনোনয়ন পেশের সময় যে হলফনামা জমা দিয়েছিলেন তিনি, তাতে দেখা গিয়েছে, ভজন স্নাকতোত্তর উত্তীর্ণ।  হলফনামা অনুযায়ী, ভজনের মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১.৫ কোটি টাকা। তার মধ্যে অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৪৩.৬ লক্ষ টাকা। স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ এক কোটি টাকা। রাজস্থানে মোট বিধানসভা আসন ২০০। তার মধ্যে ১৯৯টি আসনে ভোট হয়েছে। বিজেপি জিতেছে ১১৫টি আসনে। কংগ্রেস ৬৯টি আসনে। 

আরো পড়ুন      জীবনী  মন্দির দর্শন  ইতিহাস  ধর্ম  জেলা শহর   শেয়ার বাজার  কালীপূজা  যোগ ব্যায়াম  আজকের রাশিফল  পুজা পাঠ  দুর্গাপুজো ব্রত কথা   মিউচুয়াল ফান্ড  বিনিয়োগ  জ্যোতিষশাস্ত্র  টোটকা  লক্ষ্মী পূজা  ভ্রমণ  বার্ষিক রাশিফল  মাসিক রাশিফল  সাপ্তাহিক রাশিফল  আজ বিশেষ  রান্নাঘর  প্রাপ্তবয়স্ক  বাংলা পঞ্জিকা