বনেদি বাড়ির ভোগের খিচুড়ির রেসিপি

বনেদি বাড়ির ভোগের খিচুড়ির রেসিপি

বনেদিবাড়ির পুজোয় একটা অন্য মজা। বছরের এই কটা দিন পরিবারের সকলেই এক জায়গায় আসেন (Durga Puja  | Bhoger Khichuri Recipe)। দেশ-বিদেশ থেকে বাড়িতে ফেরা সদস্যরা তখন বাড়ির খাবারেই আস্বাদ মেটান। ষষ্টী থেকে দশমী পর্যন্ত দেবীর ভোগে থাকে নানা বৈচিত্র (Durga Puja  | Bhoger Khichuri Recipe)। ষষ্টীতে লুচি, আলুকপির ডালনা, পাঁচরকম ভাজা, চাটনি, সুজির পায়েস, মিষ্টি ও দই। সপ্তমী থেকে নবমী পর্যন্ত একই রকমের ভোগদান করা হয়।

খিচুড়ি, সাদাভাত, পোলাও, পাঁচরকম ভাজা, শুক্তো, বাঁধাকপি ও ফুলকপির ডালনা, চাটনি, পায়েস, মিষ্টি ও দই। প্রতি দিন ১৩টি থালায় খিচুড়ি, সাদাভাত ও পোলাও দেওয়া হয়। সঙ্গে থাকে পাঁচরকম ভাজা। দশমীতে আগের দিনের পান্তাভাতের সঙ্গে নানা পদ থাকে। বিশেষ পদ থাকে কচুশাকের ঘণ্ট। পুজোর দিনে বাড়িতে একদিন ভোগের খিচুড়ি না করলে পুজোর সেই আমেজটা যেন ঠিক আসে না। দেখে নিন ভোগের খিচুড়ি (Durga Puja   | Bhoger Khichuri Recipe) কী ভাবে তৈরি করবেন। 

উপকরণ• মুগ ডাল: ২ কাপ • আতপ চাল: ২ কাপ • আলু: ৪-৫ টি (চার টুকরো করা) • ফুলকপি: ১টি বড় (বড় টুকরো করা)• ফ্রোজেন কড়াইশুঁটি: ২৫০ গ্রাম • টমেটো: ৪ টুকরো করা • কাঁচালঙ্কা: ৭-৮ টিফোড়নের জন্যেদারচিনি: ৪-৫ টি স্টিক • লবঙ্গ • ছোট এলাচ • আস্ত জিরে: ১ চা চামচ • শুকনো লাল লঙ্কা: ৩ টি • তেজপাতা: ৩-৪ টি • আদা বাটা: ২-৩ টেবিল চামচ• হলুদ: আন্দাজমত • জিরেগুঁড়ো: ৩ চা চামচ • নুন: স্বাদ অনুযায়ী • চিনি: ১ টেবিল চামচ • তেল: ৫ টেবিল চামচ• সুগন্ধি ঘি: ১-২ টেবিল চামচ • গরম মশলা গুঁড়ো: ১ টেবিল চামচ • গরম জল: ৯-১০ কাপ

প্রণালী   প্যান বা কড়াই গ্যাসে বসিয়ে মুগের ডাল বাদামি করে ভেজে নিন, খেয়াল রাখবেন পুড়ে না যায়। এবার ডাল ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিন। চালও ধুয়ে রাখুন। এবার বড় একটি ডেকচি গ্যাসে বসিয়ে তেল গরম করতে দিন। ভালো করে গরম হলে আঁচ কমিয়ে আলুর টুকরোগুলো ভেজে নিন নরম হওয়া অবধি। এরপর ফুলকপির টুকরোগুলো ভাজুন সামান্য বাদামি করে।

 এবার গরম তেলে ফোড়নের উপকরণ দিয়ে দিন। ফোড়নের গন্ধ বেরোলেই হলুদ, জিরেগুঁড়োও আদা বাটা দিয়ে নাড়ুন, আঁচ কমিয়ে। সামান্য জলের ছিটে দিন। ভাজা মুগের ডাল মিশিয়ে আরও কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করুন।খানিকটা পরে ৬ কাপ মতন গরম জল দিন, আর আঁচও বাড়িয়ে দিন। ফুটতে শুরু করলে হিট সামান্য কমিয়ে ডেকচি ঢাকা দিয়ে দিন। ৪-৫ মিনিট পরে ধুয়ে রাখা চাল ছেড়ে দিন ও প্রয়োজনে আরও খানিকটা গরম জল দিন।

 আন্দাজ মতন নুন দিয়ে ডেকচি আবার ঢাকা দিয়ে দিন। ৪-৫ মিনিট পর ঢাকা খুলে দেখুন চাল ডাল অর্ধেক সেদ্ধ হয়েছে কি না। এবার ভাজা আলু ও ফুলকপি দিয়ে দিন ও মাঝে মাঝে ঢাকা খুলে নাড়াচাড়া করুন। খেয়াল রাখবেন তলায় লেগে না যায়। এবার টমেটো ও ফ্রোজেন কড়াইশুঁটি দিয়ে দিন ও প্রয়োজনে একটু গরম জল। যখন দেখবেন চাল-ডাল-আনাজ সব সেদ্ধ হয়ে মাখো মাখো হয়েছে তখন কাঁচালঙ্কা দিয়ে গ্যাস বন্ধ করে দিন।এবার একটি ছোট প্যানে ঘি গরম করতে দিন। গরম হলে গরম মশলাগুঁড়ো দিয়ে নেড়ে নিয়ে খিচুড়িতে মিশিয়ে দিন। ভোগের খিচুড়ি তৈরি।

আরো পড়ুন      জীবনী  মন্দির দর্শন  ইতিহাস  ধর্ম  জেলা শহর   শেয়ার বাজার  কালীপূজা  যোগ ব্যায়াম  আজকের রাশিফল  পুজা পাঠ  দুর্গাপুজো ব্রত কথা   মিউচুয়াল ফান্ড  বিনিয়োগ  জ্যোতিষশাস্ত্র  টোটকা  লক্ষ্মী পূজা  ভ্রমণ  বার্ষিক রাশিফল  মাসিক রাশিফল  সাপ্তাহিক রাশিফল  আজ বিশেষ  রান্নাঘর  প্রাপ্তবয়স্ক  বাংলা পঞ্জিকা