সামনেই কালীপুজো! এবার মায়ের জন্য নিজের হাতে তৈরী করুন রাঙা আলুর পান্তুয়া

সামনেই কালীপুজো! এবার মায়ের জন্য নিজের হাতে তৈরী করুন রাঙা আলুর পান্তুয়া

সামনেই কালীপুজো | আর যে কোনও পুজো মানেই মিষ্টি। তাই নিজের হাতেই বানিয়ে নিতে পারেন মিষ্টান্ন। কী ভাবছেন ? এত কাজের মাঝে মিষ্টি বানানো সময় কোথায় ? তাহলে বলি রেসিপি জানা থাকলে বাঙালির প্রিয় মিষ্টি পান্তুয়ার মতো জিভে জল আনা এই মিষ্টিটি খুব অল্প সময়েই বানিয়ে নেওয়া যায়। তার আগে হাতের কাছে জোগড়া করে নিন খোয়া, ময়দা, চিনির সিরা | তাহলে আর কী নিজে হাতে মিষ্টি বানিয়ে চমকে দিন পরিবারের সবাইকে। 

উপকরণ: 

৫০০ গ্রাম রাঙা আলু
১ কাপ গুঁড়ো দুধ
১/২ কাপ ময়দা
২ কাপ চিনি
২ কাপ জল
৮-১০ টি ছোট এলাচ
১/৪ চা চামচ খাবার সোডা
১/২ কাপ নকুলদানা
১/২ লিটার সাদা তেল অথবা ডালডা ঘি

ধাপ:

১. প্রথমে রাঙা আলু গুলো ভালো করে ধুয়ে প্রেসার কুকারে সেদ্ধ করে নিন। তারপর জল ঝরিয়ে ঠান্ডা করে খোসা ছাড়িয়ে চটকে মেখে রাখুন। যাতে কোন দানা না থাকে।

২. এবার একটা পাত্রে ২ কাপ চিনি ২ কাপ জল দিয়ে চার পাঁচটা ছোট এলাচ দিয়ে রস তৈরি করে নিন।কিছুটা রস পাতলা রাখবেন কিছুটা রস ঘন করে রাখবেন।

৩. বার রাঙা আলুর মধ্যে আমূল দুধ ও ময়দা মিশিয়ে একটা নরম ডো তৈরি করে নিন। বাকি ছোট এলাচের দানা ওই মিশ্রণের সাথে মাখিয়ে নিন।

৪. এবার হাতের মধ্যে ঘি লাগিয়ে ঐ ডো থেকে একটু করে লেচি নিন। একটা করে নকুলদানা মাঝে দিয়ে গোল করে নিন। নিজের ইচ্ছামত আকারে সবগুলো করে নিন।

৫. এবার কড়াইতে সাদা তেল অথবা দালদা ঘি গরম হতে দিন। ভালোভাবে তেল গরম হয়ে গেলে কম আছে পান্তুয়া গুলো ভাল করে ভেজে নিন।

৬. ভাজা পান্তুয়া গুলো গরম পাতলা রসে প্রথমে দিয়ে ১০ মিনিট ঢোকার জন্য অপেক্ষা করুন।তারপর পাতলা রস থেকে তুলে চিনির রসে ডুবিয়ে দিন।

৭. পাতলা রসে রাখলে কিন্তু পান্তুয়া গুলো কেটে যাবে তাই ঘন রসে দেওয়াটা জরুরি।

৮. এবার প্লেটে বা বাটিতে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।