উত্‍সবের মরসুমে রেকর্ড পতন সোনার দামে

উত্‍সবের মরসুমে রেকর্ড পতন সোনার দামে

সোনা একটি ধাতব হলুদ বর্ণের ধাতু। বহু প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ এই ধাতুর সাথে পরিচিত ছিল। অপরিবর্তনীয় বৈশিষ্ট্য, চকচকে বর্ণ, বিনিময়ের সহজ মাধ্যম, কাঠামোর স্থায়ীত্বের কারণে এটি অতি মূল্যবান ধাতু হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আসছে সেই প্রাচীনকাল থেকেই। সোনা দিয়ে বিভিন্ন ধরনের অলঙ্কার তৈরির প্রথা এখনও সমানভাবে বিরাজমান রয়েছে।

নতুন বছর শুরু আগে এক ধাক্কায় পড়ল সোনার দাম। বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি ১০ গ্রামে ভারতীয় মুদ্রার হিসেবে প্রায় ৯,০০০ টাকা করে দাম কমেছে সোনার। গত ছ'বছরে এই প্রথম এক ধাক্কায় এতটা দাম কমল। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশেও সোনার দাম প্রায় ০.৪ শতাংশ পড়ে যায় বৃহস্পতিবার। ভারতীয় বাজারেও বৃহস্পতিবার কমেছে সোনার দাম।

এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম ০.৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৭,৬৫০ টাকা। মাসখানেক ধরে মোটামুটি একটি স্তরের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে হলুদ ধাতু। প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম দাঁড়ায় ৪৭ হাজার ৬৫০ টাকা। দাম কমার কারণে উত্‍সবের এই মরসুম সোনা কেনার ভাল সময় বলেও মনে করছেন বাজার বিশেষজ্ঞদের একাংশ। সোনার পাশাপাশি, আন্তর্জাতিক এবং দেশের বাজারে রুপোর দামও পড়ে যায়। 

করোনাভাইরাসের ওমিক্রন রূপের সংক্রমণ ঘিরে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ এবং শেয়ার বাজারের পতনের প্রভাব সোনা-রুপোর বাজারে পড়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা। পাশাপাশি, আমেরিকায় ফেডারেল ব্যাঙ্কের সাম্প্রতিক কিছু পদক্ষেপকেও এর কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

সে দেশেও বৃহস্পতিবার সোনা-রুপোর দাম কমেছে অনেকটাই। প্রসঙ্গত, নভেম্বরের গোড়াতেও সোনার দামে দু'দফায় পতন ঘটেছিল। আপাতত ভারতীয় বাজারে রেকর্ডের থেকে ৮,৫০০ টাকার মতো কম আছে সোনার দাম। গত বছর অগস্টে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৫৬,২০০ টাকার কাছে পৌঁছে গিয়েছিল।