লাল হলুদ কোচ ফাওলারের জরিমানা পাঁচ লাখ

লাল হলুদ কোচ ফাওলারের জরিমানা  পাঁচ লাখ

শাস্তি হবে জানাই ছিল। কিন্তু ঠিক কত টাকা জরিমানা এবং কটা ম্যাচ নির্বাসন সেটাই জানার বাকি ছিল। বুধবার অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন এর ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলল লাল হলুদ কোচের শাস্তির ব্যাপারে। চার ম্যাচ নির্বাসন এবং পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে তাঁর। ফেডারেশনের প্রধান আইনজীবী ঊষানাথ বন্দোপাধ্যায় এই শাস্তি নির্ধারণ করেছেন।

এফসি গোয়া ম্যাচ রেফারিদের সঙ্গে বিতর্কে জড়ান তিনি। রেফারিদের ব্রিটিশ বিদ্বেষ অথবা ইস্টবেঙ্গল বিদ্বেষ নিয়ে মন্তব্য করেন তিনি।শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির ধারা অনুযায়ী কোচের এই মন্তব্য বর্ণবিদ্বেষী পর্যায়ে পড়ে। তাই এমন মন্তব্যে ভারতবর্ষের ফুটবল কলঙ্কিত হয়েছে অভিমত ছিল ফেডারেশনের। শেষ ম্যাচেও ইস্টবেঙ্গল বেঙ্গালুরুর কাছে পরিষ্কার দু গোলে হেরে যায়।

প্লে অফের আশা মোটামুটি শেষ। তার ওপর ব্রিটিশ কোচের এমন মন্তব্য এবং শাস্তি ক্লাবের কাজটা আরও কঠিন করে দিল। ফেডারেশনের তরফে জানানো হয়েছে ধারা ৫৯ এক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এই ধারায় শাস্তির পরিমাণ আরও বেশি হত। কিন্তু ব্রিটিশ কোচকে এবার দলের কথা চিন্তা করেই ওই শাস্তি দেয়নি ফেডারেশন। এদিকে সুভাষ ভৌমিক সহ বিভিন্ন প্রাক্তন ফুটবলার এবং কোচ সমালোচনা করতে ছাড়েননি ব্রিটিশ কোচের।

তাঁর গেম রিডিং, ফুটবলার পরিবর্তন থেকে শুরু করে মেজাজ হারানো, সব কিছুরই সমালোচনা করেছেন প্রাক্তনরা। এদিকে লাল হলুদ দলের সহকারী কোচ টনি গ্রান্ট একটি বিস্ফোরক ট্যুইট করেন যা নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। তিনি বলেন ক্লাবের পুরনো ম্যানেজমেন্ট নতুন দলের ক্ষতি করতে চাইছেন এবং নিজেদের পরিচিত সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের ব্যবহার করে ব্যক্তিগতভাবে বর্তমান কোচ এবং স্টাফদের ক্ষতি করার চেষ্টা করছেন।

এটা কোনও মতেই মেনে নেওয়া যায় না। পরে অবশ্য বিতর্ক তৈরি হওয়ায় এই ট্যুইট মুছে ফেলেন তিনি। কিন্তু ততক্ষনে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। প্রচুর সমর্থক এবং ক্লাব অনুরাগীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনা করেন এই পোস্টের।