রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশকারী নয়, বাংলায় প্রধানমন্ত্রী এলে বহিরাগত,তৃণমূলকে খোঁচা দিলীপের

রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশকারী নয়, বাংলায় প্রধানমন্ত্রী এলে বহিরাগত,তৃণমূলকে খোঁচা দিলীপের

রোহিঙ্গারা এলে অনুপ্রবেশকারী নয়। প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এলে বহিরাগত! তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়ের 'বহিরাগত' খোঁচার জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ। দিল্লিতে বৈঠকে যোগ দিতে গিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। রাতে শহরে ফেরেন। বুধবার বিজেপিকে নিশানা করেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়।

বলেন, ''বাংলায় বহিরাগতরা অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে। তা রুখতে হবে।'' বাম জমানার কথা টেনে এ দিন সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, ''তখন ত্রস্ত বিধ্বস্ত বাংলা। রাজ্যের স্থিতাবস্থা ফিরিয়েছেন মমতা। বাংলার পুনর্গঠন করেছেন।'' জেলাগুলিকে পাঁচটি জোনে ভাগ করে 'পঞ্চ পাণ্ডব'কে দায়িত্ব দিচ্ছে বিজেপি।

সেই প্রসঙ্গে সুখেন্দুশেখর রায় বলেন,''বাংলায় বহিরাগতরা অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে। তা রুখতে হবে।'' তার পাল্টা দিলীপের বক্তব্য, রোহিঙ্গারা এলে অনুপ্রবেশকারী নয়। আর দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলায় এলে বহিরাগত! গরুপাচারকাণ্ডে প্রাক্তন বিএসএফ কর্তাকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। ওই প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেন,''পাচারকারীদের ধরাতে রাজ্যের মানুষ খুশি।

ওদের কেন কষ্ট হচ্ছে! লোকসভা ভোটের বাংলা দখলের স্বপ্ন দেখছে গেরুয়া শিবির। ১৮ জন সাংসদ প্রাপ্তির পর বিধানসভা ভোটে ২০০টি আসন বেঁধে দিয়েছেন অমিত শাহ। বিজেপি দিবাস্বপ্ন দেখতে বলে কটাক্ষ করলেন তৃণমূল সাংসদ। তাঁর কথায়,''১৮টা আসন পেয়ে গিয়েছি। অতএব বাজিমাত। দিবাস্বপ্ন দেখছে।

একটা লোকসভা ভোটের সঙ্গে বিধানসভা ভোটের কোনও সম্পর্ক নেই। বিধানসভা ও লোকসভাকে এক করে দেখাই তো হাস্যকর।''উল্লেখ্য, একুশের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে বাংলায়। লড়াইয়ের ময়দানে প্রতিপক্ষকে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তেও রাজি নয় কোনও শিবির।

সবদলই কর্মীদের চাঙ্গা করতে সভা-মিছিল শুরু করেছে। একই লক্ষ্যে বাংলায় এসেছিলেন অমিত শাহ। বর্তমানে বাংলায় রয়েছেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান-সহ আরও চার দাপুটে নেতা। ভোটের প্রস্তুতি খতিয়ে প্রতিমাসেই বাংলায় আসতে পারেন অমিত শাহ ও জেপি নাড্ডা।