ভারতীয় এই ফল দিয়েই ভাল হবে স্তন ক্যানসার, দাবি গবেষকের

ভারতীয় এই ফল দিয়েই ভাল হবে স্তন ক্যানসার, দাবি গবেষকের

আজবাংলা   অবশেষে পাওয়া গেল স্তন ক্যানসার প্রতিরোধের উপাদান। মগধ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক বিবেক আখৌরির দাবি রেখেছেন। মুলত একটি গাছের বীজে রয়েছে এর উপাদান। আমেরিকার বিজ্ঞান, ওষুধ, কলা ও অন্যান্য জ্ঞানচর্চা বিষয়ক জার্নালে তাঁর গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছে ‘সেজ পাবলিশিং’ সংস্থা।

এক ধরনের বিশেষ প্রজাতির ইঁদুরের উপরে পরীক্ষা করে সফলও হয়েছেন তিনি। গাছটির নাম হল রক্তচন্দন। এখন এমনই এক চাঞ্চল্যকর ঘোষণাতে সারা বিশ্বে শোরগোল পড়ে গেছে। তবে এর আগে রক্তচন্দন গাছের গুঁড়ির কেন্দ্রীয় অংশে ক্যানসার দমনের উপাদান সম্পর্কে প্রমাণ মিলেছিল পরীক্ষাগারের গবেষণায়।

গবেষক আখৌরি জানিয়েছেন, ‘ইঁদুরের দেহে ক্যানসার কোষ প্রবেশ করানোর পরে যে টিউমার তৈরি হয়েছিল, পাঁচ সপ্তাহ ধরে দৈনিক একবার করে রক্তচন্দন গাছের বীজ খাওয়ানোর পরে টিউমারের আকার ৪৯.৫% হ্রাস পেতে দেখা গিয়েছে। ওই বীজ বক্সার জেলার সিমরি গ্রাম থেকে সংগ্রহ করা হয়েছিল।’

তবে এই প্রথম কোনও প্রাণীর উপরে এই গবেষণা সফল হল বলে জানা গিয়েছে। বর্তমানে ক্যানসারজনিত টিউমারের আকার ছোট করতে তামিলনাডু, শ্রীলঙ্কা ও ব্যাঙ্ককে সহজলভ্য ‘বেল’ ফলের গুরুত্ব বিচারে গবেষণা করছেন আখৌরি। প্রসঙ্গত, রক্তচন্দন গাছের গুঁড়ির অভ্যন্তর কাজে লাগিয়ে ক্যানসার উপশমের জন্য চিনের অধ্যাপক লি ও তাঁর সহ-গবেষকদের গবেষণা সফল হয় ২০১৮ সালে। তবে তখন পরীক্ষা ল্যাবরেটরিতেই বন্দি ছিল বলে জানিয়েছেন আখৌরি।

তাঁর সহ-গবেষক পটনার অনুগ্রহ নারায়ণ কলেজের বট্যানি বিভাগের অধ্যাপিকা মনোরমা কুমারী জানিয়েছেন, ‘চিনের ওই গবেষণায় জানা গিয়েছিল রক্তচন্দন গাছের কেন্দ্রীয় অংশ এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা কৃত্রিম উপায়ে সৃষ্টি ক্যানসার কোষের আকার ছোট করতে সহায়ক হয়। এই সাফল্য দেখা গিয়েছে বিশেষত লিভার, স্তন ও মহিলাদের যৌনাঙ্গের ক্যানসারে।’

তার আগে ২০১১ সালে তাইওয়ানে অধ্যাপক উ্য ও সহ-গবেষকদের পরীক্ষাতেও দেখা গিয়েছিল, রক্তচন্দন গাছের কেন্দ্রীয় অংশে উপস্থিত উপাদানের সাহায্যে লিভার ও স্তনের ক্যানসার কোষের বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। এইমস দিল্লির বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রোফেসর অশোক শর্মার মতে, আখৌরি ও সহ-গবেষকদের সাফল্য ক্যানসার চিকিৎসায় আয়ুর্বেদের ভূমিকা সম্পর্কে বিশ্বব্যাপী সচেতনতা গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।