খুনের হুমকি দিচ্ছেন তৃণমূল, নিরাপত্তা হীনতায় কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি প্রার্থী সন্ময়

খুনের হুমকি দিচ্ছেন তৃণমূল, নিরাপত্তা হীনতায় কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি প্রার্থী সন্ময়

খুনের হুমকি দিচ্ছেন তৃণমূল কর্মীরা। নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন তিনি। তারপরও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। এই অভিযোগ তুলে শনিবার নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হলেন পানিহাটির বিজেপি প্রার্থী সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। কমিশনের কাছে তাঁর অভিযোগ, ‘‘ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতেও এলাকা উত্তপ্ত রয়েছে। বার বার বিজেপি কর্মীদের খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমাকেও হুমকি দেওয়া হয়েছে। অথচ পুলিশের কোনও সাহায্য মিলছে না।’’

গত শনিবার পঞ্চম দফায় নির্বাচন হয় পানিহাটিতে। তারপরও রাজনৈতিক হিংসা অব্যাহত থাকে এলাকায়। সোমবার রাতে বিজেপি প্রার্থী সন্ময়ের বাড়িতে বোমাবাজি ও ভাঙচুর হয় বলে অভিযোগ। ওই ঘটনায় তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন বিজেপি প্রার্থী। পরে তাঁর বাড়িতে বোমাবাজির ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সন্ময় অবশ্য ওই ঘটনায় তৃণমূলের ১২ জন যুক্ত রয়েছেন বলে দাবি করেন। তাঁদের মধ্যেই অনেকে এখন গুলি করে মারার হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন সন্ময়। তিনি বলেন, ‘‘শনিবার ভোটের দিন রিগিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিলাম। প্রথমে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা আমার বাড়িতে বোমাবজি করে।

আর এখন তারা খুনের হুমকি দিচ্ছে। আমার গলা লক্ষ্য করে গুলি করার কথা বলছে। খড়দহ থানায় অভিযোগ জানিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি।’’ তৃণমূল নেতা তাপস রায় বলেন, ‘‘তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে তা ঠিক নয়। বিজেপি একটি নালিশ পার্টি তারা তো শুধু নালিশ করবে। কমিশন বুঝবে কী করবে। আমাদের কিছু বলার নেই। এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল যুক্ত নয়, এটা আমরা বলতে পারি।’’

তৃণমূলের পাশাপাশি খড়দহ থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর সামশের আলির বিরুদ্ধেও কমিশনে নালিশ করেন সন্ময়। তাঁর দাবি, ‘‘বার বার অভিযোগ করার পরও খড়দহ থানার অফিসার সামশের আলি কোনও পদক্ষেপ করেননি। তিনি তৃণমূলের লোকদের দ্বারা পরিচালিত হচ্ছেন। আমি কমিশনের কাছে সেই অভিযোগও জানিয়েছি। কমিশনের আধিকারিক পুরো ঘটনা শুনে আশ্বস্ত করেছেন। কমিশন যদি কোনও পদক্ষেপ না করে, তা হলে আদালতে যাব।’’ শনিবার তাঁর বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজের একটি কপি সন্ময় কমিশনের কাছে জমা দেন।