শনিদেবের খুব প্রিয় রাশি কোনটি? গ্রহরাজকে তুষ্ট করতে করুন এই কাজ

শনিদেবের খুব প্রিয় রাশি কোনটি? গ্রহরাজকে তুষ্ট করতে করুন এই কাজ

বহু চেষ্টা করেও শনিদেবের আশীর্বাদ পাওয়া যায় না। হিন্দু ধর্মে শনিদেবকে শনি গ্রহের ঐশ্বরিক রূপ হিসেবে বর্ণনা করা হয়। হিন্দু জ্যোতিষশাস্ত্রে নবগ্রহের মধ্যে শনিগ্রহ অন্তম। হিন্দু পুারণে শনিদেবকে ন্যায়বিচার, কর্ম ও প্রতিশোধের দেবতা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। চিন্তা, কর্মের উপর নির্ভর করে মানুষকে বিচার করেন তিনি।

শনি দীর্ঘায়ু, দুঃখ, মৃত্যু, বার্ধক্য, শৃঙ্খলা, সীমাবদ্ধতা, দায়িত্ব, বিলম্ব, উচ্চাকাঙ্ক্ষা, নেতৃত্ব, কর্তৃত্ব, নম্রতা, সততা ও অভিজ্ঞতার জন্মগত জ্ঞানের নিয়ামক। যারা খারাপ কাজ করেন তাদের প্রতি শনির সবসময় তির্যক নজর থাকে। এছাড়া জন্মকুণ্ডলীতে শনির অবস্থান থাকলে সেই সব ব্যক্তি কখনওই কোনও সমস্যার সম্মুখীন হন না।

অন্যদিকে যাদের কুণ্ডলীতে শনির অবস্থান দুর্বল, তারা সবসময় আর্থিক ও শারীরিক সমস্যায় জর্জরিত থাকেন। কথিত আছে যে শনিদেবের প্রিয় রাশিচক্রের উপর শনির দৃষ্টি তেমন খারাপ প্রভাব ফেলে না। শনিদেবের প্রিয় রাশি কোনগুলি তা জেনে নিন… তুলা রাশি জ্যোতিষবিদদের মতে, তুলা রাশির জাতকদের উপর শনির বিশেষ কৃপা রয়েছে। তুলা রাশি হল শনিদেবের উচ্চ রাশি।

এই কারণেই তুলা রাশি শনিদেবের সবচেয়ে প্রিয় রাশি। তুলা রাশির মানুষ খুব পরিশ্রমী হয়। তারা কারওর সঙ্গে কিছু ভুল হতে পারে তা দেখতে পারেন না। তারা সব সময় সত্যের পথে থাকেন। কথিত আছে যে শনির দশা এই রাশির মানুষের উপর ততটা খারাপ প্রভাব ফেলে না যতটা বাকি রাশিদের উপর পড়ে। মকর রাশি এই রাশির শাসক গ্রহ হল শনি।

যার কারণে এটিকে শনিদেবের প্রিয় রাশি বলে মনে করা হয়। এই রাশির জাতকরা খুব বুদ্ধিমান হন। এই রাশির জাতকরা খুব দ্রুত সাফল্য পান। এই রাশির জাতক-জাতিকরাও কঠোর পরিশ্রমী হন ও দ্রুত হাল ছেড়ে দেয় না। এই রাশিগুলির উপরও শনিদেবের খারাপ প্রভাব পড়ে না। কুম্ভ রাশি এই রাশির অধিপতি শনিদেবকেও মনে করা হয়।

এই রাশির জাতকরা সরল প্রকৃতির হযন। তাদের ধৈর্য প্রচুর। এই রাশির জাতক জাতিকারা যা কিছু করার সিদ্ধান্ত নেয় তাতে সাফল্য পাওয়ার পরেই তাদের দম নেয়। তাদের আর্থিক অবস্থা সাধারণত ভালো হয়। তারা দ্রুত হাল ছেড়ে দেয় না। শনির প্রকোপ এড়াতে করুন কী কী ব্যবস্থা নেবেন? শনির প্রকোপ এড়াতে বৃশ্চিক,ধনু ও মিথুন রাশির জাতক-জাতিকাদের শনির এই মন্ত্রটি জপ করা উচিত- ‘ওম প্রম প্রম প্রুণ শনিশ্চরায় নমঃ’। এতে শনির বিশেষ কৃপা বজায় থাকে ও জাতক-জাতিকারা শনির প্রকোপ থেকে রক্ষা পান।