মিছিল থেকে তৃণমূলকে আক্রমণ করলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়

মিছিল থেকে তৃণমূলকে আক্রমণ করলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়

বান্ধবী বৈশাখীকে নিয়ে শোভন বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন ২০১৯ সালের ১৪ অগস্ট। তার আগে ২০১৮ সালের নভেম্বরে মন্ত্রিত্ব এবং কলকাতার মেয়র পদ ছেড়ে দেন শোভন। প্রত্যক্ষ রাজনীতি থেকে তাঁর দূরত্ব তৈরি হয়েছিল তারও কয়েক মাস আগে। বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার পরেও দেড় বছর তিনি ময়দানে নামেননি।

ফলে সোমবার শুরুর দিনই প্রাক্তন দল সম্পর্কে রীতিমতো আক্রমণাত্মক শোভন। যিনি বললেন, ‘‘আমরা যখন দল করেছি, তখন তো এত অভিযোগ উঠত না! মমতাদিদি, আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে দেখুন, এমন সোনার বাংলা চেয়েছিলেন কি?’’গত সোমবার মিছিলে আসেননি শোভন-বৈশাখী।

এই সোমবার তাঁদের জন্য আলাদা মিছিলের আয়োজন করে বিজেপি-র দক্ষিণ কলকাতা সাংগঠনিক জেলা নেতৃত্ব। জেলা সভপতি শঙ্কর শিকদার থাকলেও ওই মিছিলে রাজ্য বিজেপি-র কোনও নেতা ছিলেন না। একক ভাবে শোভন-বৈশাখীকে মিছিল করতে হওয়ায় লোক সমাগম নিয়ে কিছুটা চ্যালেঞ্জ ছিলই।

তবে মিছিলে কর্মী-সমর্থকদের ভিড় কম হয়নি। যদিও শোভন-ঘনিষ্ঠদের দাবি, ‘‘শুধু বিজেপি-র কর্মীই নয়, দাদার অনুগামীরাও অনেকে মিছিলে যোগ দেন। দীর্ঘদিন পরে দাদা পথে নামলেন। অনেকেই এই দিনটার জন্য অপেক্ষা করছিলেন।’’

এ দিন সাংবাদিকদের শোভন চট্টোপাধ্যায় বলেন,'যাঁরা বহিরাগত বলছেন, তাঁরাই তো একদিন সর্বভারতীয় পার্টির শরিক দল ছিল। ভারতীয় জনতা পার্টির সহযোগিতায় জন্ম হয়েছিল সেই দলের। আজকে বহিরাগত বলার আগে নিজেদের আয়নার সামনে দাঁড়ানো উচিত।'