শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে তদন্ত কমিশন চেয়ে আদালতে জনস্বার্থ মামলা

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে তদন্ত কমিশন চেয়ে আদালতে জনস্বার্থ মামলা

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের (Shyamaprasad Mukherjee) মৃত্যু এখনও রহস্যময় কারও কারও কাছে। তাঁর মৃত্যু স্বাভাবিক নাকি অস্বাভাবিক তা নিয়েও নানা ধোঁয়াশা রয়েছে। সেই ধোঁয়াশা কাটাতে তদন্ত কমিশন গঠনের দাবিতে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হল কলকাতা হাইকোর্টে। বুধবার ২৩ জুন তাঁর ৬৮ তম মৃত্যুদিবস। তার ঠিক আগের দিনই মঙ্গলবার এই আবেদন জানানো হয়েছে।

১৯৫৩ সালের ২৩ জুন মৃত্যু হয় শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের। এই মৃত্যু নিয়ে নানা বিতর্ক রয়েছে। অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকারের দাবি ছিল, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিলেন ‘বাংলার বাঘ’ আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের পুত্র শ্যামাপ্রসাদ। স্বাধীন ভারতবর্ষের প্রথম শিল্পমন্ত্রী ছিলেন তিনি। ১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্ট ভারত স্বাধীন হওয়ার পর নেহরুর প্রথম মন্ত্রিসভায় স্থান পান তিনি।

বিতর্ক রয়েছে, এই মন্ত্রিত্ব প্রথমে নেহরু তাঁকে দিতে চাননি। মহাত্মা গান্ধী ও সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের হস্তক্ষেপে তা সম্ভব হয়। এই নিয়ে অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকার বহুবার সরবও হন। তবে উল্লেখযোগ্য ভাবে তিনবার প্রধানমন্ত্রী হয়েও বাজপেয়ী কোনওদিনই তদন্ত কমিশনের কথা ভাবেননি। ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী দিল্লির মসনদে বসেন। সে সময়ও তদন্ত কমিশন গঠিত হয়নি। এবার সেই তদন্ত কমিশন গঠনের দাবি উঠল বাংলা থেকে। কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করলেন জনৈক স্মরজিত্‍ রায় চৌধুরী।