অসুস্থ প্রাক্তন কর্মী, খবর পেয়েই পুণের ব্যক্তির বাড়িতে গেলেন রতন টাটা

অসুস্থ প্রাক্তন কর্মী, খবর পেয়েই পুণের  ব্যক্তির বাড়িতে গেলেন রতন টাটা

রতন টাটা। এই নামটা শুনলেই যে মানুষটার মুখ চোখের সামনে ভেসে ওঠে তিনি গোটা দেশের কাছে ইন্সপিরেশন। গোটা লকডাউনের সময় থেকে করোনা পরিস্থিতিতে তিনি নানা ভাবে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছেন।

কখনও কোটি টাকা ডোনেট করেছেন, হাসপাতাল তৈরি করেছেন। নানা ভাবে করোনা রোগীদের পাশে থেকেছেন। এছাড়াও নানা বিষয়ে তাকে মানুষের হয়ে কথা বলতে দেখা গিয়েছে। শুধু মানুষের কথাই ভাবেন এমন নয়, তাঁর পশুপ্রেমের কথাও সকলের জানা।

কেরলের হাতি মৃত্যুর সময় সোচ্চার হয়েছিলেন তিনি। আবার কখনও তাঁকে দেখা যায় নিজের অফিসের সামনে বসে পড়তে। পোষা দেশি কুকুরদের আদর করতেই অনায়াসে বসে পড়েন তিনি। আবার কখনও রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে যত্ন করে পালন করেন কুকুরদের।

এ হেন রতন টাটার জীবন সব সময় কঠিন লড়াইতেই কেটেছে। দেশের যে কেউ বিপদে পড়লে তিনি এগিয়ে আসেন। আর সে যদি হয় তাঁর কর্মী তাহলে তো অনেক কিছুই করতে পারেন তিনি। এই যেমন সম্প্রতি তাঁর একটি কাজ তুমুল প্রশংসা পাচ্ছে। বহুদিন আগেই তাঁর কোম্পানির চাকরি ছেড়েছেন এক কর্মী।

চাকরি ছাড়ার পর গত ২ বছর ধরে আর্থিক এবং শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন ওই ব্যক্তি। এ খবর কানে আসতেই ৮৩ বছরের রতন টাটা ছুটে গেলেন সেই কর্মীর বাড়ি। মুম্বই থেকে পুণে ফ্রেন্ডস সোসাইটিতে পৌঁছে গেলেন তিনি। তাঁকে দেখে অবাক সেই কর্মী। এমনটা কেউ করতে পারে তা স্বপ্নেও ভাবা যায় না।

সেই কর্মীর কাছে গিয়ে তাঁকে সব রকম সাহায্য করলেন। কর্মীর খারাপ অবস্থার কথা রতন টাটা একটি LinkedIn পোস্ট থেকে জানতে পারেন। তারপর ওই ব্যক্তির বাড়ির ঠিকানা জোগাড় করে নিজেই পৌঁছে যান।

এবং এ কথা তিনি কোনও মিডিয়াকে জানাননি। একেবারেই গোপনে যান। সব কিছু জানা যায় রতন টাটার কাছের কিছু মানুষের কাছ থেকে। এই ঘটনা জানার পর ফের একবার প্রশংসা শুরু হয় টাটাকে নিয়ে।