ঘূর্ণিঝড়ের সুযোগ নিয়ে বন্দি-পালানো আটকাতে বিশেষ সতর্কতা কারাদপ্তরের

ঘূর্ণিঝড়ের সুযোগ নিয়ে বন্দি-পালানো আটকাতে বিশেষ সতর্কতা কারাদপ্তরের

কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় যশের মোকাবিলায় রাজ্যের জেলগুলিতে আট দফা নির্দেশিকা জারি করল কারা দপ্তর। সূত্রের খবর, এগুলি হল, ১) প্রতিটি জেল ভবনের পাঁচিল ও অন্যান্য অংশ ঠিকঠাক আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা। ২) বন্দিদের প্রতিটি সেল সুরক্ষিত  আছে কি না, সে বিষয়ে নজর দেওয়া। ৩) ঘূর্ণিঝড় ও প্রবল বৃষ্টির জেরে জেলে বিদ্যুৎ ও পানীয় জলে কোনওভাবে বিঘ্ন ঘটলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত জানানো। ৪) জেল কর্মীদের নিরাপদে থেকে কাজ করা।

৫) বন্দি পলায়নের মতো অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সেদিকে বিশেষভাবে নজর দেওয়া। ৬) জেলগেটে নিরাপত্তা বাড়ানো। ৭) জেলের চারদিকের বৈদ্যুতিক ওয়্যারিং ব্যবস্থা ঠিক আছে কি না, সে বিষয়ে নজর দেওয়া। ৮) দপ্তরের সঙ্গে  সমন্বয় রেখে কাজ করা। কারা দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যের কেন্দ্রীয় জেলে যেহেতু বন্দির সংখ্যা বেশি, অর্থাৎ কোথাও চার, কোথাও সাড়ে চার, আবার কোথাও পাঁচ হাজারের মতো বন্দি। সে কারণে কেন্দ্রীয় জেলে নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখার কথা বলা হয়েছে।

দপ্তরের দুই কর্মীর কথায়, গত বছর নানা সতর্কতা অবলম্বন করায় উম-পুনের মতো ঘূর্ণিঝড় ও অতিবৃষ্টিতেও বড় ধরনের বিপর্যয় এড়ানো সম্ভব হয়েছে। আর এবার সেই অভিজ্ঞতাকেই  কাজে লাগিয়ে জেল-সুরক্ষা অটুট রাখার চেষ্টা করবেন জেলের আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, প্রবল এই ঘূর্ণিঝড়কে রুখতে ইতিমধ্যেই প্রতিটি জেলে কর্মীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি সংশোধনাগারের বিদ্যুৎ ও পানীয় জলের মতো জরুরি পরিষেবাগুলি যাতে ঠিক থাকে, তার জন্য প্রতিটি জেলের তরফে পূর্ত দপ্তরের সিভিল এবং ইলেকট্রিক্যাল বিভাগকে দেখতে বলা হয়েছে।

শহরের এক জেল আধিকারিকের কথায়, ঘূর্ণিঝড়ের প্রবল তাণ্ডবে যদি কোনওভাবে বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটে, তার জন্য প্রতিটি সেলে মোমবাতি ও অটোমেটিক হালকা আলোর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের এক সংশোধনাগারের আধিকারিকের কথায়, এই ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় বন্দিরা নানা সুযোগকে কাজে লাগিয়ে পালানোর চেষ্টা করে থাকে।

আর সে কারণেই প্রতিটি জেলের চারধারে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। অতিরিক্ত কারাকর্মীদের ইতিমধ্যেই কাজে নামানো হয়েছে। বিশেষ করে বিপজ্জনক বন্দিদের সেলের উপর বাড়তি নজরদারি রয়েছে। সব মিলিয়ে এই ঘূর্ণিঝড়কে কেন্দ্র করে রাজ্যের প্রতিটি কেন্দ্রীয় ও উপ সংশোধনাগারে আগাম নানা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে জেল কর্তৃপক্ষ।