২১ শে প্রবেশ। নতুন বছরের শুরুটা করুন এইভাবে

২১ শে প্রবেশ। নতুন বছরের শুরুটা করুন এইভাবে

আজবাংলা  ‘অভিশপ্ত’ ২০২০-র শেষ হওয়ার প্রহর যেভাবে গুনছিল বিশ্ববাসী, তেমনটা সচারাচর চোখে পড়ে না। বছরভর করোনা প্রকোপ ঝাঁকিয়ে ধরে থেকেছে সকলকে, একের পর এক মৃত্যু, হতাশা, প্রিয়জনকে হারানোর বেদনা। তবে সব গ্লানি ভুলে এবার নতুনকে বরণ করে নেওয়ার পালা।

প্রথমেই নতুন বছরের অনেক শুভেছা, অভিনন্দন জানাই পাঠক ও পাঠিকাদের। তবে, প্রত্যেক বছরই আসে আর যায়। আমাদের দিনের চাওয়া পাওয়া যেন মিটতেই চায় না। এবছরের শুরুটা যদি একটু অন্যভাবে করা যায়, তাহলে কেমন হয়?

এই অন্যভাবে শুরুটা যদি করা যায়, তাহলে আগামি দিনে নিজেদের অনেকটা বড় কোন প্রতিষ্ঠিত জায়গায় দেখতে পাব। আসুন আজকের প্রতিবেদনে দেখে নিন সেই বিষয়গুলি কি কি-

১. প্রতি মাসে একটি দিন বের করুন যে দিন আপনি নিজেকে একটু বিশ্রাম দিতে পারেন, নিজের স্বস্তির জন্য ব্যয় করতে পারেন। এটি আপনাকে আপনার ব্যস্ত জীবন থেকে মুক্তি দেবে।

২. ২০২০ সাল আমাদের অনেক কিছু শিখিয়ে দিয়ে গেছে। আপনি যদি গত বছর সফলভাবে পার করে থাকের তবে সব কিছুর জন্য আপনার কৃতজ্ঞ হওয়া উচিত। কিছুটা সময় ব্যয় করুন এবং বিগত বছর যা ঘটেছিল তার জন্য কৃতজ্ঞতা অনুভব করুন।

৩. আপনি যদি এই বছর কিছু ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে চান তবে আপনার পরিবেশকে ঠিক করার  চেষ্টা করুন। আপনার আর প্রয়োজন হয় না এমন জিনিসগুলো দূর করুন। আপনার পরিকল্পনাগুলো ঠিকঠাক করুন এবং তা কিভাবে বাস্তবায়িত করা যায় তা ঠিকঠাক করুন। এর ফলে আপনার চিন্তাশক্তি বৃদ্ধি পাবে।

৪. মনে করুন আমরা আগে  কিভাবে চিঠি লিখলাম। নিজের কাছে নিজে চিঠি লিখুন। নিজের আশা,আকাঙ্খা, ভয়, ভবিষ্যৎ এর পরিকল্পনা নিয়ে লিখুন।

৫. গত বছর প্রযুক্তির উপর আমাদের নির্ভরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। অফিসিয়াল সভা থেকে শুরু করে বন্ধুদের সাথে একত্রিত হওয়া, সবকিছুই ভার্চুয়াল হয়ে যায়। এ কারণে আমরা বছরের বেশিরভাগ অংশ স্কিনেই কাটিয়েছি। এখন কিছুটা বিরতি দেওয়া ‍উচিত। বছরের প্রথম দিনই নিজের জন্য কিছু সময় ব্যয় করুন। সময় নিয়ে হেটে আসুন।

৬. নতুন বছর শুরু করুন একটি ছোট্ট ভালো কাজ দিয়ে। জামাকাপড় দান করে অভাবীদের সাহায্য করুন বা তাদের উপহার দিন। এ বিষয়টি আপনার মনকে প্রফুল্ল করবে।