ফিরহাদের নামে একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ সস্ত্রীক কোটি কোটির সম্পত্তি

ফিরহাদের নামে  একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ সস্ত্রীক কোটি কোটির সম্পত্তি

নির্বাচন কমিশনের কাছে হলফনামায় নিজের সম্পত্তির বিবরণ দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতার প্রাক্তন মেয়র। ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে তাঁর উপার্জন ছিল ৬৫ লক্ষ ৮৭ হাজার ৬২০ টাকা। তাঁর স্ত্রী ইসমত উপার্জন করেছিলেন ১ কোটি ৩২ লক্ষ ৫৪ হাজার ২৫০ টাকা। ৩ সন্তানের মধ্যে ছোট মেয়ে আফশা এখনও তাঁদের উপর নির্ভরশীল বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।বর্তমানে ফিরহাদের হাতে আছে নগদ ৫৫ হাজার ৬৫০ টাকা।

তাঁর স্ত্রীর কাছে আছে ৬৫ হাজার ২৫৫ টাকা।একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ফিরহাদের নামে গচ্ছিত আছে মোট ১ কোটি ৯১ লক্ষ ৫৬ হাজার ৬৭১ টাকা ৮৭ পয়সা।তাঁর স্ত্রীর নামে ব্যাঙ্কে জমা আছে ২ কোটি ৩০ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৩৯ টাকা ৯০ পয়সা।মেয়ে আফশার নামে ব্যাঙ্কে সঞ্চিত ১০ লক্ষ ৯৩ হাজার ৪৩৭ টাকা ৮২ পয়সা।মিউচুয়াল ফান্ডে ফিরহাদ বিনিয়োগ করেছেন ১ লক্ষ টাকা। তাঁর স্ত্রী বিনিয়োগ করেছেন ৫ হাজার টাকা।ফিরহাদের নামে কোনও গাড়ি নেই।

তাঁর স্ত্রীর নামে একটি হন্ডা সিআরভি ২.০ সিভিটি আছে। কেনার সময় যার দাম ছিল ২৭ লক্ষ ১৮ হাজার ২০৩ টাকা।সোনা, রুপো ও মূল্যবান পাথর মিলিয়ে ফিরহাদের কাছে মোট ২০৪ গ্রাম গয়না আছে। যার বাজারদর প্রায় ১৮ লক্ষ টাকা। তাঁর স্ত্রীর কাছে থাকা ৬৩০ গ্রাম গয়নার মূল্য প্রায় ২৪ লক্ষ টাকা।ফিরহাদের নামে নথিভুক্ত রয়েছে ‘হাকিম কেমিক্যালস’। সংস্থায় তিনি বিনিয়োগ করেছেন প্রায় ১ কোটি ৭৩ লক্ষ ৯৯ হাজার ৬৪৯ টাকা ৩০ পয়সা।

তাঁর স্ত্রী ১ কোটি ৮৯ লক্ষ ৩০ হাজার ৯৬৩ টাকা ৪৪ পয়সা বিনিয়োগ করেছেন ‘স্যানি স্টাইল’-এ।চেতলা সেন্ট্রাল রোডে ফিরহাদের নামে একটি দোকানঘর আছে। ২০১১ সালে তিনি সেটি কিনেছিলেন ৫২ লক্ষ ১০ হাজার ১০০ টাকায়। তাঁর এই সম্পত্তির বর্তমান বাজারদর প্রায় ৭৮ লক্ষ টাকা।গোপালনগর রোড এবং বিটি রোডে তাঁর স্ত্রীর নামে আরও দু’টি দোকানঘর আছে। সে দু’টির সম্মিলিত বর্তমান মূল্য প্রায় ৯০ লক্ষ টাকা।

ফ্ল্যাট ও বাড়ি মিলিয়ে মোট চারটি সম্পত্তির কথা উল্লেখ করেছেন ফিরহাদ। এর মধ্যে একটি তিনি উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়েছেন। বাকি তিনটির মধ্যে একটি আছে তাঁর নামে। অন্য দু’টির মালিকানা তাঁর স্ত্রীর নামে।২০০৬ থেকে ২০০৯ সালের মধ্যে এই তিনটি সম্পত্তির মালিক হয়েছিলেন ফিরহাদ ও তাঁর স্ত্রী। তাঁদের চারটি বাড়ির বর্তমান বাজারদর প্রায় ৪ কোটি টাকা।ফিরহাদের নামে এই মুহূর্তে ব্যাঙ্কঋণ নেই। তাঁর স্ত্রীর নামে সাড়ে ১৪ লক্ষ টাকার ব্যাঙ্কঋণ চলছে।কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ হেরম্বচন্দ্র কলেজ থেকে ফিরহাদ ১৯৭৯ সালে বাণিজ্য বিভাগে স্নাতক হন।এ বারের নির্বাচনে ফিরহাদের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি-র অবধ কিশোর গুপ্ত এবং সংযুক্ত মোর্চা প্রার্থী কংগ্রেসের মহম্মদ মুখতার।