তমলুক বিধানসভা কেন্দ্র | Tamluk Assembly

তমলুক বিধানসভা কেন্দ্র | Tamluk Assembly

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুক  বিধানসভা কেন্দ্র  ১৯৭২ সালে কংগ্রেসের প্রতিনিধিত্বকারী অজয় ​​মুখার্জী জয়ী হন। ১৯৭১,১৯৬৯ এবং ১৯৬৭ সালে বাংলা কংগ্রেসের অজয় ​​মুখার্জী জয়ী হন এবং এর আগে ১৯৬২, ১৯৫৭ সালে এবং স্বাধীন ভারতের প্রথম নির্বাচন ১৯৫১ সালে কংগ্রেসের অজয় ​​মুখার্জী জয়ী হন। ১৯৭৭ সালে কংগ্রেসের সুকুমার দাসকে পরাজিত করেন সিপিআইয়ের বিশ্বনাথ মুখার্জী। 

পাঁচ বছর আগে বিধানসভার ভোটে রাজ্য জুড়ে ছিল তৃণমূলের জয়জয়কার। কিন্তু যে জেলা থেকে রাজ্য জুড়ে তৃণমূলের উত্থান বলে দাবি করা হয়, সেই পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক বিধানসভায় তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা নির্বেদ রায়কে হারিয়ে বাম শরিক সিপিআই প্রার্থী অশোক দিন্দার জয় রাজনৈতিকমহলে আলোড়ন ফেলেছিল। তমলুক বিধানসভায় ৫২০ ভোটের ব্যবধানে জয় হয়। তৃণমূলের শক্তঘাটি তমলুকে পরাজয়ের কারণ হিসেবে উঠে আসে শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকে শাসকদলের তীব্র গোষ্ঠী কোন্দল।

গত লোকসভা ভোটে তমলুক কেন্দ্রে তৃণমূলের হয়ে লড়েছিলেন তৃণমূল নেতা তথা অধিকারী পরিবারের সদস্য দিব্যেন্দু অধিকারী। তিনি জয়ী হলেও তাঁকে সমানে টক্কর দিয়েছেন বিজেপির প্রার্থী সিদ্ধার্থ নস্কর। বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে থাকা শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকে বিজেপির চেয়ে তৃণমূল এগিয়েছিল প্রায় পাঁচ হাজার ভোটে। আবার তমলুক ব্লকের চারটি পঞ্চায়েত এলাকায় তৃণমূল পিছিয়ে ছিল প্রায় এক হাজার ভোটে।  লোকসভা ভোটের পরে কেটে গিয়েছে প্রায় দু’বছর।

এর মধ্যে জল গড়িয়েছে জেলা রাজনীতিতে। এক সময় পূর্ব মেদিনীপুরে তৃণমূলের কাণ্ডারি শুভেন্দু অধিকারী গত ডিসেম্বরে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন স্থানীয় বিধায়ক অশোক দিন্দা এবং তমলুক শহর তৃণমূলের সভাপতি বিশ্বনাথ মহাপাত্র। এছাড়া, ‘দাদার অনুগামী’ হিসাবে শুভেন্দুর ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতা-কর্মীদের একাংশ দলবদল করে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। 

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা রাজ্য নির্বাচন, ২০২১: তমলুক বিধানসভা  

তৃণমূল কংগ্রেস  ডা. সৌমেন কুমার মহাপাত্র, বিজেপি হরেকৃষ্ণ বেরা,  সিপিএম গৌতম পণ্ডা 

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে, সিপিআই এর অশোক দিন্দা তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বেদ রায়কে পরাজিত করেন।

সিপিআই অশোক কুমার দিন্দা ৯৫,৪৩২ | তৃণমূল কংগ্রেস নির্বেদ রায় ৯৪,৯১২| বিজেপি বিশ্বজিৎ দত্ত ১৪,১৪৪ | সোশ্যালিস্ট ইউনিটি সেন্টার অফ ইন্ডিয়া (কমিউনিস্ট) সতীশ সাউ ৪,২৪৪ | নির্দলগৌতম দত্ত ৮৭৪| বিএনপি রঞ্জন মালাকার ৭৫৮| আরজেএস পিতাপস চক্রবর্তী৩২৯ |ইন্ডিয়ান ইউনিটি সেন্টাররাজমান মল্লিক ৩২৩| সংখ্যাগরিষ্ঠতা ৫২০ |ভোটার উপস্থিতি ২,১১,০১৬

২০১১ সালের বিধানসভা নির্বাচন

তৃণমূল কংগ্রেস ডা.সৌমেন মহাপাত্র ৯৯,৭৬৫সিপিআই জগন্নাথ মিত্র৭৯,০৮৯বিজেপিমলয় কুমার সিংহ৫,৪২৩নির্দলরাম চন্দ্র মাইতি১,৬১০পিডিসিআইখৈরুদ্দিন রহমান১,৫৬৩ইন্ডিয়ান ইউনিটি সেন্টারঅতুল রহমান ভুন্যা১,৪১৪ভোটার উপস্থিতি১৮৮,৮৬৪

বিধানসভার বিধায়ক

১৯৫১ তমলুক অজয় মুখার্জী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ১৯৫৭ অজয় মুখার্জী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ১৯৬২অজয় মুখার্জী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ১৯৬৭ অজয় মুখার্জী বাংলা কংগ্রেস | ১৯৬৯ অজয় মুখার্জী বাংলা কংগ্রেস | ১৯৭১অজয় মুখার্জী বাংলা কংগ্রেস |  ১৯৭২ অজয় মুখার্জী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ১৯৭৭ বিশ্বনাথ মুখার্জী ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি |  ১৯৮২বিশ্বনাথ মুখার্জী ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি|  ১৯৮৭ সুরজিত বাগচি ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি |  ১৯৯১অনিল মুদি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ১৯৯৬ অনিল মুদি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস | ২০০১ নির্বেদ রায় সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস | ২০০৬ জগন্নাথ মিত্র ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি | ২০১১ ডা. সৌমেন মহাপাত্র সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস |২০১৬অশোক কুমার দিন্দা ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি | ২০২১ তৃণমূল কংগ্রেস  ডা. সৌমেন কুমার মহাপাত্র